বেঁচে যাওয়া যাত্রীর বর্ণনায় যেভাবে বিধ্বস্ত হয় উড়োজাহাজ

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: নেপালের ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্তে বেঁচে গেছেন বসন্ত বড়ুয়া নামে একজন নেপালি। যিনি দুর্ঘটনার সময় উড়োজাহাজের আসনে বসেছিলেন। তিনি গুরুতর আহত হয়ে নরভিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার বরাত দিয়ে বিধ্বস্ত হওয়া সময়কার তথ্য প্রকাশ করেছে কাঠমান্ডু পোস্ট।

ওই প্রতিবেদনে বসন্ত বড়ুয়ার বরাত দিয়ে বলা হয়, উড়োজাহাজটিতে বিভিন্ন ট্যুরিস্ট এজেন্সির মাধ্যমে আসা ১৬ নেপালি ছিলেন। তারা প্রশিক্ষণের জন্য বাংলাদেশে গিয়েছিলেন।

বড়ুয়া জানান, উড়োজাহাজটি স্বাভাবিকভাবেই ঢাকা ছেড়ে যায়। কিন্তু ত্রিভুবনে অবতরণ করার আগমুহূর্তে সেটি অস্বাভাবিক আচরণ করতে শুরু করে। ‘এরইমধ্যে উড়োজাহাজটি প্রচণ্ড ঝাঁকুনি দেয় এবং বিকট শব্দ করে।’

‘আমি জানালার কাছের সিটে বসেছিলাম এবং দুর্ঘটনার সময় জানালাটি ভেঙে ফেলে বেরিয়ে আসি’ বলেন বেঁচে যাওয়া ওই যাত্রী।

তিনি বলেন, ‘জানালা ভেঙে বেরিয়ে যাওয়ার পর আমার আর কিছু মনে নেই। কেউ একজন আমাকে সিনামঙ্গল হাসপাতালে নিয়ে যায় এবং সেখান থেকে আমার এক বন্ধু নরভিক হাসপাতালে নিয়ে আসে।’ তিনি বলেন, ‘আমি অত্যন্ত সৌভাগ্যবান যে, ভয়াবহ এই দুর্ঘটনার পর আমি এখনো বেঁচে আছি।’

সূত্র : কাঠমান্ডু পোস্ট

শেয়ার করুন