কারি শিল্পের স্টাফ সংকট নিরসনে সিলেট-লন্ডন যৌথ প্রচেষ্টার তাগিদ

সিলেট চেম্বার-বিসিএ ইউকে’র মতবিনিময় সভায় বক্তাদের অভিমত

 


বক্তব্য রাখছেন বিসিএ সভাপতি এম এম কামাল ইয়াকুব

ডেস্ক রিপোর্ট:দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র উদ্যোগে যুক্তরাজ্যস্থ বাংলাদেশ ক্যাটারার্স এসোসিয়েশন ইউকে (বিসিএ) এর প্রতিনিধিদলের সাথে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় বক্তারা বলেছেন, লন্ডনের মতো সিলেটে কারী শিল্পের প্রসার ঘটাতে হলে দক্ষ জনশক্তি তৈরীতে যৌথভাবে কাজ করতে হবে। লন্ডনে যেমন প্রশিক্ষিত ও দক্ষ শেফ, ওয়েটারের অভাব রয়েছে, তেমনিভাবে বাংলাদেশেও এর চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বক্তারা দক্ষ জনশক্তি তৈরীতে প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউট স্থাপনের তাগিদ দেন। সভায় চলতি বছর সিলেট চেম্বার ও বিসিএ ইউকে’র যৌথ উদ্যোগে সিলেটে একটি ফুড ফেস্টিভ্যাল আয়োজন করা হবে বলে উভয় সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ঐক্যমত পোষণ করেন।
বৃহস্পতিবার (০১ মার্চ ২০১৮) সন্ধ্যায় চেম্বারের কনফারেন্স হলে সিলেট চেম্বারের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদের সভাপতিত্বে আয়োজিত এই মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ক্যাটারার্স এসোসিয়েশন ইউকে’র সভাপতি মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল ইয়াকুব।
সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এম. এম. কামাল ইয়াকুব বলেন, বর্তমানে যুক্তরাজ্যে রেস্টুরেন্ট ব্যবসায় দুর্দশা চলছে। অনেকেই এই ব্যবসা ছেড়ে দিয়ে অন্য পেশায় চলে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, রেস্টুরেন্ট ব্যবসা নিয়ে লন্ডনে কোন নেতিবাচক ধারণা নেই, বরং এটি ‘ইজ্জতের ব্যবসা’ হিসেবেই পরিচিত। তিনি বলেন, আমরা প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি এই ব্যবসাকে আবার জমজমাট করার জন্য। এ নিয়ে আমরা সরকারের সাথেও আলোচনা করছি। তিনি বলেন, আমরা যদি নতুন প্রজন্মের চাহিদা অনুযায়ী ব্যবসার পরিবেশ তৈরী করে দিতে পারি তাহলে বাপ-দাদার এই ব্যবসায় তারা ফিরে আসবে বলে আমি আশাবাদী। তিনি যুক্তরাজ্যে কারী ইন্ডাস্ট্রিতে লোক নিয়োগে বিধি-বিধান সহজ করার লক্ষ্যে বৃটিশ সরকারকে চাপ দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহবান জানান। তিনি ফুড হাইজিনিং সিকিউরিটি বিষয় নিয়ে অভিজ্ঞতা বিনিময়ের আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে এনআরবি বাংলাদেশ পণ্য আমদানীকারক সমিতি, রিয়াদ এর কেন্দ্রীয় শাখার সভাপতি মোঃ কাপ্তান হোসেন বলেন, যুক্তরাজ্যে যেমন দক্ষ লোকের প্রয়োজন তেমনিভাবে মধ্যপ্রাচ্যের বিশাল শ্রমবাজারেও প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কর্মীদের পাঠানো উচিত। তাহলে তারা সাধারণ শ্রমিকের চেয়ে দুই তিনগুণ বেশী পারিশ্রমিক অর্জন করতে পারবে। তিনি দক্ষ জনশক্তি তৈরীতে একটি প্রশিক্ষণ ইন্সটিটিউট স্থাপনের আহবান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে সিলেট চেম্বারের সভাপতি খন্দকার সিপার আহমদ বলেন, বৃটিশ অর্থনীতির অন্যতম শক্তি হচ্ছে কারী শিল্প। বাংলাদেশী কারীর প্রতি ধীরে ধীরে বৃটিশ জাতির আকর্ষণ এই শিল্পকে ছড়িয়ে দিয়েছে দূর থেকে দূরান্তরে। এই কারী শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে দক্ষ শেফ তৈরী, সৃজনশীল খাবার পরিবেশন, স্টাফ সংকট নিরসন, প্রশিক্ষণের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাংলাদেশ ক্যাটারার্স এসোসিয়েশন ইউকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারবে। তিনি বলেন, বর্তমানে বৃটেনে বাংলাদেশী মালিকানাধীন প্রায় ১২ হাজার রেস্টুরেন্ট রয়েছে। এসব রেস্টুরেন্টে ব্যবহৃত বেশীরভাগ মসলা ভারত থেকে রপ্তানী হয়ে থাকে। তিনি এসব মসলা বাংলাদেশে উৎপাদন করে তা রপ্তানীর ব্যবস্থা গ্রহণের আহবান জানান।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিলেট চেম্বারের সিনিয়র সহ সভাপতি মাসুদ আহমদ চৌধুরী, এফবিসিসিআই এর পরিচালক সালাহ্ উদ্দিন আলী আহমদ, সিলেট চেম্বারের পরিচালক মোঃ হিজকিল গুলজার, মুশফিক জায়গীরদার, ক্যাটারার্স গ্রুপ অব সিলেট এর সভাপতি নুরুজ্জামান টিপু, সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দিন বাবলু, সদস্য হুমায়ুন কবির সুহিন, বিসিএ ইউকে এর সাবেক সহ সভাপতি মোঃ আকিকুর রহমান, সদস্য সৈয়দ আবুল মনসুর লিলু, ওয়াজিদ হাসান সেলিম, ফজলে রাব্বী চৌধুরী, হোটেল ওনার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি ফয়েজ উদ্দিন লোদী, চ্যানেল এস’র বিশেষ প্রতিনিধি আব্দুল মালিক জাকা, সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহিত চৌধুরী, ওভারসীজ করসপনডেন্ট্স এসোসিয়েশন (ওকাস) সভাপতি খালেদ আহমদ, বাংলা টিভি ইউকে এর সিলেট ব্যুরো প্রধান আবু তালেব মুরাদ প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সিলেট চেম্বারের সিনিয়র অফিসার মিনতি দেবী।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট চেম্বারের পরিচালক মোঃ সাহিদুর রহমান, আমিরুজ্জামান চৌধুরী, আব্দুর রহমান, শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংকের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ম্যানেজার মোঃ তোফায়েল ইয়াকুব, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, ইমজা’র সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ দেবু, সিলেট চেম্বারের সদস্য মোঃ জামাল ইয়াকুব, এম. এ. হান্নান, মঞ্জুর আহমদ চৌধুরী, মোঃ সিরাজুল ইসলাম, স্বন্দীপন নন্দী, এডভোকেট চৌধুরী আতাউর রহমান আজাদ প্রমুখ।

শেয়ার করুন