স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র দেখতে চায় ভারত

বিশ্ব স্বীকৃত ‘স্বাধীন এবং সার্বভৌম রাষ্ট্র’ হিসেবে ফিলিস্তিনকে দেখতে চায় ভারত। শনিবার ফিলিস্তিন নেতা মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে যৌথ প্রেস ব্রিফিংয়ে ভারতের এই আকাঙ্খার কথা জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ইসরাইল এবং ফিলিস্তিন দুই দেশের সঙ্গেই ভারত যে সম্পর্ক রেখে চলার পক্ষপাতী সে কথাও স্পষ্ট করেন মোদী। তাকে সর্বোচ্চ সম্মাননা দিয়েছে ফিলিস্তিন। খবর এনডিটিভি ও আনন্দবাজার পত্রিকার

৩০ বছর আগে ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিয়েছিল ভারত। কিন্তু এ পর্যন্ত কোনো ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী সে দেশে যাননি। সেই অর্থে গতকাল মোদীর রামাল্লা সফর ছিলঐতিহাসিক। তিন ঘণ্টার জন্য রাজধানী রামাল্লায় ছিলেন মোদী। জর্ডনের রাজধানী আম্মান থেকে একটি চপারে গতকাল সকালে রামাল্লায় যান মোদী। রয়্যাল জর্ডনিয়ান চপার এবং ইসরাইলি বিমান বাহিনীর চপার তাকে এসকর্ট করে নিয়ে যায় রামাল্লায়। মোদীকে সেখানে স্বাগত জানান ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস। সেখান থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী যান রামাল্লায় ফিলিস্তিন মুক্তি আন্দোলনের (পিএলও) নেতা ইয়াসির আরাফাতের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানাতে। এরপর মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে বৈঠকে বসেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদী। সেখানে দুই দেশের মধ্যে কয়েকটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

দিল্লির পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় সূত্রের খবর, বৈঠকে ভারতের পক্ষ থেকে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার হয়ে উঠলেও ফিলিস্তিনের সঙ্গে ভারতের দীর্ঘদিনের সম্পর্কে তার কোনো প্রভাব পড়বে না। সেই লক্ষ্যেই দু’দেশের মধ্যে কয়েকটি চুক্তিও হয়েছে। রামাল্লায় একটি সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালের উদ্বোধনও করেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। মাহমুদ আব্বাস প্রধানমন্ত্রী মোদীর সফরকে ‘অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ’ বলে চিহ্নিত করেছেন। প্রধানমন্ত্রী মোদীকে তিনি বলেছেন, ‘মহান অতিথি’। মোদীকে ‘গ্র্যান্ড কলার অব দ্য স্টেট অব ফিলিস্তিন’ সম্মাননা দেওয়া হয়। বিদেশি রাষ্ট্রের বাদশাহ, সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানদের এই সম্মাননা দিয়ে থাকে ফিলিস্তিন।

শেয়ার করুন