পছন্দের পোশাক পরতে পারবেন খালেদা জিয়া

ডেস্ক রিপোর্টঃ কোড অনুযায়ী সাধারণ কারাবন্দিদের জন্য নির্দিষ্ট ড্রেস কোড রয়েছে। তবে ডিভিশন-১ (প্রথম শ্রেণির বিশেষ বন্দির মর্যাদা) পাওয়া কারাবন্দিদের জন্য জেল কোডে নির্দিষ্ট ড্রেস কোড উল্লেখ নেই। ডিভিশন-১ পাওয়া বন্দিরা তাদের পছন্দসই পোশাক পরতে পারবেন। ডিভিশন পাওয়া বন্দি হওয়ায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াও নিজের পছন্দের পোশাক পরতে পারবেন। কারা অধিদফতরের ঢাকা বিভাগের ডিআইজি (প্রিজন্স) তৌহিদুল ইসলাম এসব তথ্য জানিয়েছেন।

জেল কোডের ১১৬৫ নং বিধিতে বলা হয়েছে, সাধারণ পুরুষ কারাবন্দিদের জন্য পাজামা ৩টি, লম্বা পাজামা ২টি, কোর্তা বা হাফ-শার্ট ২টি, সুতির শার্ট ২টি, সুতির মোজা ২ জোড়া, টুপি ১টি এবং নারী কারাবন্দিদের জন্য শাড়ি ৩টি, সুতির ব্লাউজ ২টি, সেমিজ ২টি এবং সুতির মোজা ২ জোড়া দেবেন কারা কর্তৃপক্ষ। শীত বা বর্ষাকালে কারা কর্তৃপক্ষ পুরুষদের জন্য উলের কোর্ট ১টি, ফ্লানেল শার্ট ২টি এবং নারীদের জন্য সুতির ব্লাউজ ১টি, উলের ব্লাউজ ১টি, ফ্লানেল সেমিজ ২টি, সুতির মোজা ২ জোড়া দেবে।

অন্যদিকে, জেল কোডের ১০৫৪ নং বিধিতে ডিভিশন পাওয়া বন্দিদের ড্রেস কোড সম্পর্কে বলা হয়েছে, প্রত্যেক বন্দি নিজের পোশাক পরতে পারবেন। তবে পোশাক পর্যাপ্ত ও ব্যবহারের যোগ্য হতে হবে এবং আপত্তিকর হবে না। জেল সুপারের অনুমতি নিয়ে ডিভিশন পাওয়া বন্দিরা সময়ে সময়ে নিজ খরচে অতিরিক্ত পোশাক সংগ্রহ করতে পারবেন। তবে এই সুযোগে কোনও রাজনৈতিক পোশাক সংগ্রহ করা যাবে না। কেউ সরকারি খরচে পোশাক চাইলে তাকে দ্বিতীয় শ্রেণির বন্দিদের জন্য নির্দিষ্ট পোশাক দেওয়া হবে। বন্দিকে তাদের কাপড় ধোয়ার সাবান দেওয়া হবে, তবে তিনি যদি নিজে পোশাক ধোয়ায় অনভ্যস্ত হন, তবে জেল সুপার তার কাপড় ধোয়ার ব্যবস্থা করবেন। এ জন্যে বন্দিকে কোনও খরচ দিতে হবে না।

এ ব্যাপারে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদার পক্ষের আইনজীবী আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘ডিভিশন পাওয়া বন্দিদের পোশাকের ক্ষেত্রে জেল কোডে সুনির্দিষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। তারা নিজেদের পছন্দমতো পোশাক পরতে পারবেন।’

ডিআইজি তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ‘ডিভিশন পাওয়া বন্দি হিসেবে খালেদা জিয়া তার পছন্দমতো পোশাক পরতে পারবেন। জেল কোডে এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট করে কোনও পোশাকের কথা বলা হয়নি।’

শেয়ার করুন