বিশ্ব ইজতেমা: প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাত আজ

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: বিশ্ব ইজতেমায় লাখো মুসল্লির উপস্থিতিতে চলছে বয়ান ও জিকির। এরই ধারাবাহিকতায় আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। আজ রবিবার (১৪ জানুয়ারি) সকাল ১১টায়  অনুষ্ঠিত হবে আখেরি মোনাজাত । এবারের মোনাজাত হবে বাংলায়, পরিচালনা করবেন মাওলানা মো. জোবায়ের। এর আগে হেদায়তি বয়ান করবেন মাওলানা আব্দুল মতিন।

এদিকে, বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় দিন শনিবারও বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দিতে মুসল্লিদের টঙ্গীমুখী স্রোত অব্যাহত ছিল। কনকনে শীত ও ঘন কুয়াশা উপেক্ষা করে বাস, ট্রাক, ট্রেন, নৌকা-লঞ্চসহ বিভিন্ন যানবাহনে চড়ে টুপি-পাঞ্জাবি আর শীতের পোশাকে হাজার হাজার মুসল্লি টঙ্গীতে জমায়েত হন। আখেরি মোনাজাতের আগ পর্যন্ত মুসল্লিদের আগমন অব্যাহত থাকবে।

প্রতিদিন ফজর থেকে এশা পর্যন্ত ইজতেমা মাঠে ঈমান, আমল, আখলাক ও দ্বিনের পথে মেহনতের ওপর আমবয়ান অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শনিবার বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় দিনে দেশ-বিদেশ থেকে আগত মুরুব্বিরা তাবলিগের ছয় ওছুলের মধ্যে দাওয়াতে দ্বিনের মেহনতের ওপর গুরুত্বারোপ করে বয়ান করেন।

বয়ান করেছেন যারা

প্রথমপর্বের দ্বিতীয় দিন শনিবার বাদ ফজর বাংলাদেশের মাওলানা নূরুল রহমান, বাদ জোহর  সুদানের মাওলানা ড. জাহাদ, বাদ আছর বাংলাদেশের নূরুর রহমান, বাদ মাগরিব মাওলানা ফারুক হোসেন বয়ান করেন।

আখেরি মোনাজাত  সকাল ১১টায়

বিশ্ব ইজতেমার মুরুব্বি প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন বলেন, ‘রবিবার সকাল ১০ থেকে ১১টায় আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশের কাকরাইলের মাওলানা মো. জোবায়ের বাংলায় আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন। আখেরি মোনাজাতের আগে যে হেদায়তি বয়ান হয়, তা পরিচালনা করবেন বাংলাদেশি মাওলানা আব্দুল মতিন। আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে এবারের ইজতেমার প্রথম পর্ব।’

মোনাজাত শুনতে ময়দানের বাইরে শতাধিক মাইক

ইজতেমার ময়দানের বাইরে অবস্থানকারী মুসল্লি ও এলাকাবাসীকে মোনাজাতে শরিক হতে গাজীপুর ও ঢাকা জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে শতাধিক মাইকের সংযোগ দেওয়া হয়েছে। গাজীপুর জেলা তথ্য কর্মকর্তা এসএম রাহাত হাসনাত বলেন, ‘ভিড়ের কারণে যারা মূল ময়দানে যেতে পারবেন না, আখেরি মোনাজাতে তাদের  শরিক হতে টঙ্গীর মধুমিতা রোড, টঙ্গী বিসিক এলাকা, নোয়াগাঁও এবং চেরাগআলীর বিভিন্ন শাখা সড়কে মোনাজাতের মাইকের সঙ্গে আরও  ৮০টি মাইকের সংযোগ দেওয়া হবে। একই সংখ্যক মাইক ঢাকা অংশেও সংযোগ দেওয়া হবে।’

যানবাহন নিয়ন্ত্রণ
গাজীপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ জানান, আখেরি মোনাজাতে যোগদানের জন্য ঢাকা, গাজীপুরসহ আশপাশের এলাকা থেকে হাজার হাজার মুসল্লির আগমন  ঘটবে। বিপুল সংখ্যায় মুসল্লির যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে মহাসড়কগুলোতে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে। শনিবার মধ্যরাতের আগেই ঢাকা থেকে আগত যানবাহনগুলোকে আব্দুল্লাহপুর থেকে কামারপাড়া অভিমুখে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। তাছাড়া,  ময়মনসিংহ এবং টাঙ্গাইল থেকে ঢাকাগামী যানবাহনগুলোকে ভোগড়া চৌরাস্তা এবং সিলেট থেকে ঢাকাগামী যানবাহনগুলোকে টঙ্গীর নিমতলীতে আটকে দেওয়া হবে। তবে ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের বন্ধ থাকা সড়কগুলো অতিক্রমের জন্য ১৫টি বিআরটিসি বাস শ্যাটল সার্ভিস দেবে বলেও জানান তিনি।

আরও  দুই মুসল্লির মৃত্যু

বিশ্ব ইজতেমার মাসলেহাল জামাতের সদস্য মো. আদম আলী জানান, শুক্রবার রাত ১১টার দিকে আরও এক মুসল্লি মারা গেছেন। নিহত মো. রফিকুল ইসলাম (৫০)-এর বাড়ি লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চরবাইতা গ্রামে। একই রাত সাড়ে ৯টার দিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মালেশিয়ান নাগরিক নূরহান বিন আব্দুর রহমান (৫৫) মারা গেছেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার রাতে আরও দুই মুসল্লির মৃত্যু হয়।

 

২০১৯ সালের বিশ্ব ইজতেমা ১১জানুয়ারি

তাবলিগ জামাতের শীর্ষ মুরব্বি মো. গিয়াস উদ্দিন জানান, শুক্রবার রাতে তাবলিগ জামাতের শীর্ষ মুরুব্বিদের এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সিদ্ধান্ত হয় আগামী বছরের বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব অনুষ্ঠিত হবে ১১, ১২ ও ১৩ জানুয়ারি এবং দ্বিতীয় পর্ব অনুষ্ঠিত হবে ১৮, ১৯ ও ২০ জানুয়ারি।

শেয়ার করুন