ওসমানীনগরে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ: পুলিশের এসল্ট মামলা

ওসমানীনগর প্রতিনিধি :: সিলেটের ওসমানীনগরের তাজপুর বাজারে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় অজ্ঞাতনামা দেড়শ জনকে আসামী করে একটি এসল্ট মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে ওসমানীনগর থানায় মামলাটি (নং-২) দায়ের করা হয়।

ওসমানীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ সহিদ উল্যা মামলা দায়েরের ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। বর্তমানে তাজপুরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। তবে অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশের টহল অব্যাহত আছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সোমবার দুপুরে তাজপুর ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগের বিবাদমান দুটি পক্ষের নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে জড়ায়। এতে অন্তত ২৫ জন আহত হন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে। প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপি সংঘর্ষে ব্যবসায়ীসহ স্থানীয় লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়েন।

জানা যায়, সোমবার দুপুরের দিকে তাজপুর ডিগ্রী কলেজের ভিতরে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক চঞ্চল পালের অনুসারী ছাত্রলীগ কর্মী হাম্মাদ আল হাসান ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আনা মিয়ার অনুসারী ছাত্রলীগ কর্মী মঞ্জুর আহমদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। কথাকাটির এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে মারমুখী পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

এই ঘটনার খবর পেয়ে ওসমানীনগর থানার পুলিশ তাজপুর বাজারে অবস্থান নেয়। কলেজের ঘটনার জের ধরে বিকেলে তাজপুর বাজারে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দাল মিয়া ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আনা মিয়া অনুসারী ছাত্রলীগের কর্মীরা এবং উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক চঞ্চল পাল অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ২৫ জন আহত হন।

শেয়ার করুন