৫ কোটি টাকা না দিলে এমপি শওকতের জামিন বাতিল

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: আগামী দুই মাসের মধ্যে পাঁচ কোটি টাকা বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকে জমা না দিলে নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য মো. শওকত চৌধুরীর জামিন বাতিল হবে বলে আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

এ বিষয়ে হাইকোর্টের আগের রায় সংশোধন করে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞার নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির আপিল বেঞ্চ সোমবার (৪ ডিসেম্বর) এ আদেশ দেন।

এর আগে গত ২২ অক্টোবর বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাইকোর্ট বেঞ্চ ৫০ দিনের মধ্যে ২৫ কোটি টাকা বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকে জমা না দিলে এমপি শওকতের জামিন বাতিলের রায় দিয়েছিলেন। পরে হাইকোর্টের এই রায় স্থগিত চেয়ে আবেদন করেন এমপি শওকত চৌধুরী। সোমবার হাইকোর্টের রায় সংশোধন করে আপিল বিভাগ নতুন আদেশ দেন।

সাংবাদিকদের এই তথ্য জানিয়েছেন দুদকের আইনজীবী খুরশিদ আলম। আদালতে শওকতের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী নুরুল ইসলাম সুজন।

২০১২ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০১৫ সালের মার্চ পর্যন্ত মোট ৩৭টি এলসি খুলে মেসার্স যমুনা অ্যাগ্রো কেমিক্যাল, মেসার্স অ্যাগ্রো কেমিক্যাল লিমিটেড ও উদয়ন অ্যাগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের নামে ঋণ জালিয়াতির অভিযোগ ওঠে শওকত চৌধুরীর বিরুদ্ধে। পরে তা সুদে আসলে শত কোটি টাকার ওপরে চলে যায়।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকের বংশাল শাখা থেকে ২০১৬ সালের ৮ মে ৮২ লাখ ৮৯ হাজার ৮১৫ টাকা এবং ১০ মে ৯৩ কোটি ৩৬ লাখ ২০ হাজার ২১৩ টাকা ঋণ জালিয়াতির অভিযোগে সংসদ সদস্য শওকতসহ ৯ জনের নামে দুটি মামলা করে দুদক। এরপর আগস্ট মাসে শওকত চৌধুরী হাইকোর্ট থেকে জামিন পাওয়ার পর নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। পরে বিচারিক আদালতও তার জামিন মঞ্জুর করেন।

শেয়ার করুন