২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ডিএনসিসি’র ভোট

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: মেয়র আনিসুল হকের অকাল মৃত্যুতে শূন্য ঘোষিত ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদে ‍উপনির্বাচন আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে অনুষ্ঠিত হবে বলে নির্বাচন কমিশন (ইসি) জানিয়েছে।  সোমবার  আনিসুল হকের মৃত্যুতে ডিএনসিসি মেয়র পদ শূন্য ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

প্রকাশিত ওই গেজেটে বলা হয়, স্থানীয় সরকার (সিটি নির্বাচন) আইনের ১৫ (ঙ) ধারা অনুযায়ী, ১ ডিসেম্বর থকে মেয়র পদটি শূন্য ঘোষণা করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইসির সহকারী সচিব মো. রাজীব আহসান ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘সিটি করপোরেশনের কোনও পদ শূন্য হওয়ার পরবর্তী ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার আইনি বাধ্যবাধকতা রয়েছে। সে হিসেবে ১ তারিখ থেকে ডিএনসিসিকে শূন্য ঘোষণা করা হলে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এই সিটিতে উপনির্বাচন করতে হবে।’

ইসি সূত্রে জানা যায়, সোমবার (৪ ডিসেম্বর) পর্যন্ত ডিএনসিসি মেয়র পদ শূন্য হওয়ার প্রজ্ঞাপনের কপি নির্বাচন কমিশনে পৌঁছায়নি। প্রজ্ঞাপনের কপি হাতে পাওয়ার পর কমিশন এই সিটিতে নির্বাচন করার প্রস্তুতি নেবে।

এর আগে গতকাল রবিবার নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ জানিয়েছিলেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে (ডিএনসিসি) মেয়র পদ শূন্য ঘোষণা করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করার ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করা হবে।

স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) আইন ২০০৯-এর ১৬ ধারায় বলা হয়েছে, মেয়র বা কাউন্সিলের মেয়াদ শেষ হওয়ার ১৮০ দিনের আগে যদি কোনও পদ শূন্য হয়, তবে ৯০ দিনের মধ্যে সেখানে উপনির্বাচন হবে। উপনির্বাচনে বিজয়ী বাকি মেয়াদে মেয়র বা কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ঢাকা উত্তর-দক্ষিণ ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনে ভোট হয়। ওই নির্বাচনে উত্তরের মেয়র পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আনিসুল হক ‘টেবিল ঘড়ি’ প্রতীক নিয়ে লড়াই করেন। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ‘বাস’ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নেন। তবে কারচুপির অভিযোগ তুলে তিনি ভোটের দিন দুপুরেই ভোট বর্জন করেন। আনিসুল হক মেয়র নির্বাচিত হন। গত নির্বাচন নির্দলীয় হলেও এবাবের নির্বাচন হবে দলীয় প্রতীকে।

শেয়ার করুন