সিলেট-৬ আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতে চান হেলাল খান

বিয়ানীবাজারে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়

বিয়ানীবাজার প্রতিনিধি :: আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-৬ আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য, জাতীয়তাবাদী সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংস্থা’র (জাসাস) কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক চিত্রনায়ক হেলাল খান। এ লক্ষে স্থানীয় বিএনপি নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে তিনি নির্বাচনী এলাকায় কাজও শুরু করেছেন। দলের মনোনয়ন এবং বিজয়ী হলে তিনি এলাকার উন্নয়নে অবদান রাখার প্রতিশ্রুতিও ব্যক্ত করেন। এজন্য হেলাল খান সকলের দোয়া এবং সাংবাদিকদের সর্বাত্মক সহযোগীতা কামনা করেন।

বুধবার বেলা দু’টায় স্থানীয় একটি অভিজাত রেস্টুরেন্টের হলরুমে বিয়ানীবাজারে কর্মরত প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ায় কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

হেলাল খান রাজনীতি করে জেল খেটেছেন এবং বর্তমানে তিনি ৪টি মামলায় জামিনে রয়েছেন উল্লেখ করে বলেন, দেশে এখন গণতন্ত্র ও আইনের শাসন কোনটাই নেই। বিএনপি নেতাকর্মীদের গুম, খুন এবং মিথ্যা মামলা দায়ের হরহামেশা হচ্ছে। এ থেকে জাতি পরিত্রাণ পেতে চায়। তিনি বলেন, বিএনপি অতীতের যেকোন সময়ের চেয়ে এখন শক্তিশালী। ম্যাডাম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা আগামী নির্বাচনের জন্য কাজ করছেন।

বিএনপি নেতা হেলাল খান বলেন, নির্বাচন ও আন্দোলন দু’টোর জন্য বিএনপি প্রস্তুত। আগাম নির্বাচন হলেও বিএনপি প্রস্তুত রয়েছে। তবে নির্বাচন নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে হতে হবে। সিলেট-৬ আসন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি আশাবাদি বিএনপি এ আসনে আমাকে মনোনয়ন দেবে। কেন্দ্রের গ্রীণ সিগন্যাল পেয়েই বিএনপি নেতাদের সাথে নিয়ে গত মঙ্গলবার আলীনগর ইউনিয়ন থেকে সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু করেছি এবং পর্যায়ক্রমে দু’উপজেলার সবক’টি ইউনিয়ন ও পৌরসভায় করা হবে।

জাসাস নেতা হেলাল খান বলেন, শহীদ জিয়াউর রহমানের দেশপ্রেম, সততা ও মানুষের প্রতি ভালোবাসা দেখে রাজনীতি করতে উৎসাহিত হয়েছি। ১৯৯১ সালে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাংস্কৃতিক সম্পাদক হিসেবে মাঠের রাজনীতি শুরু করি। এরপর দেশে ফিরে বিএনপির সদস্য এবং কেন্দ্রীয় জাসাসের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদের মধ্যদিয়ে সর্বশেষ চলতি বছরে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হই। এজন্য ম্যাডাম খালেদা জিয়ার সাথে রাজনৈতিক ও ব্যক্তিগত সম্পর্ক গড়ে উঠেছে।’

তিনি বলেন, ‘সিলেটের ৬টি আসনে বিএনপির মনোনয়ন কে পাবেন তা আমি জানবো। এ হিসেবে ম্যাডামকে বলবো সিলেট-৬ গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার) আসনে যেনো ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন হয় এবং বিএনপির ত্যাগী নেতা যেনো এর কান্ডারি হন। হেলাল খান বলেন, আমার বিশ^াস দল মনোনয়ন দিলে শতভাগ নিশ্চিত আমি বিজয়ী হবো।’ তিনি বলেন, ‘বিগত বন্যার সময় ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে আক্রান্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি। এছাড়াও স্থানীয় বিএনপির সভা সমাবেশসহ সকল রাজনৈতিক প্রতিকূল পরিবেশে নেতাকর্মীদের পাশে ছিলাম এবং পাশে থাকবো।’

জেলা বিএনপির সহ সভাপতি এমএ মান্নান বলেন, রাজনীতিতে শামীম, হেলালসহ আমরা সবাই একই পরিবারের সন্তান। দলকে অগ্রসর করতে আমরা পৃথকভাবে সাংবাদিকদের সামনে কথা বলছি। তাদের এ আগমন বিয়ানীবাজারের রাজনীতিকে সমৃদ্ধ করছে। তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে কোন বিভেদ নেই। দল যাকে মনোনয়ন দিবে তাঁকে নিয়েই আমরা নির্বাচন করবো।

সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা বিএনপির সহ সভাপতি ও যুবদলের সভাপতি এমএ মান্নান, মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি আবুল ফাত্তাহ বকশি, বিয়ানীবাজার উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি হাজি আব্দুল মতলিব, সাধারণ সম্পাদক ছিদ্দিক আহমদ, সহ সভাপতি আতাউর রহমান ও আলী হাসান, যুগ্ম সম্পাদক ফয়ছল আহমদ, দপ্তর সম্পাদক কামাল আহমদ, শাহজাহান আহমদ, বিয়ানীবাজার উপজেলা যুবদলের সভাপতি হাজি জসিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক দৌলা হোসেন সুভাস, জুবের আহমদ, পৌর যুবদলের সভাপতি হোসেন আহমদ দোলন, সাধারণ সম্পাদক নজমুল হোসেন প্রমুখ।

শেয়ার করুন