রাইজ স্কুল ও ইউরোকিডসের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা সম্পন্ন

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: সিলেট নগরীর রয়েল ইন্সটিটিউট অব স্মার্ট এডুকেশন (রাইজ) ও ইউরো কিডস্ স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা বৃহস্পতিবার আবুল মাল আবদুল মুহিত ক্রীড়া কমপ্লেক্স মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘রাইজ ও ইউরোকিডস স্কুলের শিক্ষা কার্যক্রম বিশ্বমানের। সামগ্রীকভাবে এই দুটি প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম ব্রিটিশ স্ট্যান্ডার্ট। তিনি বলেন, জনাকীর্ণ শহরে শিশুদের খেলার মাঠ নেই। মা-বাবাও শিশুদের খেলার জন্য সময় দিতে পারেন না। এমন পরিস্থিতিতে এই বিদ্যালয় দুটি শিশুদের প্রাথমিক শিক্ষণ কার্যক্রমে বিরাট অবদান রাখছে। তিনি বলেন, খেলতে খেলতে শিশুরা কিছু শিখলে সহজে তা ভুলে না। শহরে এ ধরনের স্কুলের বেশি প্রয়োজন। স্কুল দুটির সাফল্য কামনা করেন তিনি। পাশাপাশি সিটি করপোরেশন থেকে সর্বাত্বক সহযোগিতারও আশ্বাস দেন।

রাইজ স্কুলের প্রিন্সিপাল ডরেট ওয়াটের সভাপতিত্বে ক্রীড়া প্রতিযোগীতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- ইউরো কিডস ও রাইজ স্কুলের চেয়ারম্যান ফয়সল আহমেদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরী মিজান, ম্যানেজিং ডিরেক্টর গোলাম রব্বানি চৌধুরী, ডিরেক্টর ফাহিম আহমেদ চৌধুরী, ইউরো কিডস স্কুলের প্রিন্সিপাল রুশিনা চৌধুরী ।

ইউরো কিডসের শিক্ষক সাবরিনা আক্তার ও রাইজ প্রাইমারী স্কুল কো-অর্ডিনেটর জিনাত মোস্তফার যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করে ইউরোকিডসের ছাত্র নাবিল। পরে সম্মিলিত কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেন অতিথি ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন ধরনে খেলায় অংশ নেয়। পরে তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিরা। অনুষ্ঠানে শিক্ষক ও অভিভাবকরাও উপস্থিত ছিলেন। রাইজ স্কাউট, মার্শালআর্ট ক্লাব ও সাইক্লিং ক্লাব তাদের বিভিন্ন ধরনের কসরত প্রদর্শন করেন, এতে বিমোহিত হন উপস্থিতিরা।

সিলেট নগরীর সুবিদবাজারে অবস্থিত রাইজ স্কুল পরিচালনা করছে, রয়েল এডুকেয়ার লিমিটেড (আরইএল)। এখানে মন্টেসরি শিক্ষাপদ্ধতি চালু রয়েছে। এই পদ্ধতির শিক্ষাব্যবস্থা ভারত, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, ভূটান ও মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বব্যাপী দারুণ সমাদৃত।

আরইএল পরিচালিত রয়েল ইন্সটিটিউট অব স্মার্ট এডুকেশনে (রাইজ) ইলিমেন্টারি, মিডল ও হাইস্কুল এই তিনটি বিভাগে শিক্ষার্থীদের পড়ানো হচ্ছে। প্রতিটি ক্লাসে নির্ধারিত আসন। নির্দিষ্ট সংখ্যক শিক্ষার্থী। সবার জন্য রয়েছে প্রযুক্তিগত ও আধুনিক শিক্ষা উপকরণের সবধরণের সুযোগ-সুবিধা।

প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ফয়সল আহমদ চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশে শিশুদের জন্য আধুনিক যুগোপযোগী শিক্ষা পদ্ধতি প্রবর্তন করা হবে ইউরো কিডস ও রাইজ স্কুলের শিক্ষা কার্যক্রম। শিশুদের মানসিক বিকাশে বয়স উপযোগী পাঠ্যক্রম এবং এক্সট্রা কারিকুলাম অ্যাকটিভিটিজের সমন্বয়ে পাঠদান করা হবে।

তিনি জানান, প্রতিষ্ঠান দুটি সিলেটের একমাত্র ক্যামব্রিজ কারিকুলামের স্কুল যা সম্পূর্ণ প্রযুক্তিনির্ভর ও ব্যতিক্রমী পাঠদানের ব্রত নিয়ে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

শেয়ার করুন