নাট্যমঞ্চ সিলেটের ২৭ বছর পূর্তিতে বৃহস্পতিবার নানা অনুষ্ঠানমালা

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: ১৯৯০ সালে স্বৈরাচার পতনের উত্তাল সময়ে এক ঝাক তরুন “অপসংস্কৃতি নয়, চাই জাতীয় সংস্কৃতির বিকাশ” এই স্লোগানে সিলেট শহরে গড়ে তুলে নাট্যমঞ্চ সিলেট নামে নাট্যদল। মুক্তিযুদ্ধের অদম্য চেতনায় নাট্যমঞ্চ তাদের পথ চলা শুরু করে। দীর্ঘ ২৭ বছরের পথ পরিক্রমায় নাট্যদলটি সিলেটের নাট্য আন্দোলনে রেখেছে গৌরবময় কিছু কর্মকান্ড। সিলেট অডিটরিয়াম মঞ্চ কিংবা কেন্দ্রীয় শহিদমিনার বা অন্য যেকোন উন্মুুক্ত স্থানে নাট্যমঞ্চ বার বার গিয়েছে দর্শকের সামনে। কখনও মুক্তিযুদ্ধের নাটক, কখনও দুর্নীতি বিরোধী, গণতন্ত্র, সাধারণ মানুষের অধিকার রক্ষায় আবার যুদ্ধাপরাধীর বিচার দাবীতে জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ে বিভিন্ন সময়ে তাদের ছিল দীপ্ত পদচারণা।

৭ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার নাট্যমঞ্চ সিলেটের গৌরবের ২৭বছর পূর্তি উপলক্ষে ‘জাগো সত্যের শুভ আলোয় জাগো হে মিলিত প্রাণ’ এই স্লোগানে রিকাবীবাজার কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে আয়োজন করা হয়েছে পথনাটক, মঞ্চে তারণ্য স্মারক ও মঞ্চনাটক।

বিকেল ৪টায় মুক্তমঞ্চে পথনাটকে অংশ নিবে দর্পণ থিয়েটার, নগরনাট, নাট্যালোক সিলেট (সুরমা), দিক থিয়েটার (শাবিপ্রবি), থিয়েটার মুরারীচাঁদ। সন্ধ্যা সাড়ে ৫টায় সিলেটে প্রথমবারের মতো ৫জন তরুণ নাট্যকর্মী ও সংগঠকদের নাট্যকার, নির্দেশক, অভিনয়শিল্পী, সংগঠক এবং সংগঠন বিষয়ে মঞ্চে তারণ্য স্মারক প্রদান করা হবে।

সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় অডিটোরিয়াম মঞ্চে কাজী মাহমুদুর রহমানের রচনায় ও রজত কান্তি গুপ্তের নির্দেশনায় মঞ্চস্থ হবে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক নাটক, বধ্যভূমিতে শেষদৃশ্য।

নাট্যমঞ্চ সিলেটের সভাপতি রজত কান্তি গুপ্ত ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান এক বিবৃতিতে নাট্যহিতৈষী ব্যক্তিবর্গসহ সকল নাট্য ও সংস্কৃতিকর্মীদের নাট্যমঞ্চ সিলেটের গৌরবের ২৭ বছর পূর্তি উদ্যাপনে উপস্থিত থাকার জন্য বিনীতভাবে অনুরোধ জানিয়েছেন।

 

শেয়ার করুন