‘দুঃস্থ ও দরিদ্র মানুষের সেবায় অগ্রণী ভূমিকা রাখছেন লিওরা’

লিও ক্লাব ইন্টারন্যাশনালের ৬০বছর পূর্তি উদযাপন

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: লিও ক্লাব ইন্টারন্যাশনালের ৬০ বছর পূর্তি উপলক্ষে লিও ক্লাব অব সিলেটের উদ্যোগে লিও ইতিহাস ও কার্যক্রম নিয়ে সেমিনার মঙ্গলবার নগরীর মানিকপীর রোডস্থ লায়ন্স শিশু হাসপাতালের কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ক্লাব সভাপতি লিও মো. মাহবুব কামালীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন লায়ন্স ক্লাব অব সিলেটের ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট এবং লিও ক্লাব অব সিলেটের এডভাইজার লায়ন ডা. খন্দকার মাজহারুল আনোয়ার শাহজাহান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘লিও (খবড়) শব্দের অর্থ পূর্ণরূপের অর্থ হচ্ছে- নেতৃত্ব, অভিজ্ঞতা ও সুযোগ। এর আভিধানিক অর্থ সিংহশাবক হলেও সাংগঠনিক ক্ষেত্রে এর পরিচয়ে ভিন্নতা রয়েছে। মূলত, লিও ক্লাবের মাধ্যমে দেশের যুব সমাজ দুঃস্থ ও দরিদ্র মানুষের সেবায় অগ্রণী ভূমিকা রাখছে, এছাড়া লিওরা বিভিন্ন সেবামূলক কাজে নিজেদের নিয়োজিত রাখছে।’

তিনি বলেন, ‘১৯৫৭ সালের ৫ ডিসেম্বর আমেরিকার পেনসেলভিনিয়া রাজ্যের এভিংটন হাই স্কুলের বেসবল টিমের সদস্যদের নিয়ে সর্বপ্রথম লিও ক্লাব গঠন করা হয়। পরবর্তীতে সারাবিশ্বে লিও’র কার্যক্রম ছড়িয়ে পড়ে। এরই ধারাবাহিতকায় ধানমন্ডি লায়ন্স ক্লাবের তত্ত্বাবধানে কমলাপুর লিও ক্লাব গঠনের মাধ্যমে বাংলাদেশে ১৯৭৩ সালের ২৩ আগস্ট লিওইজমের সূচনা হয়। এই ক্লাব প্রতিষ্ঠায় অবদান রাখেন চলচ্চিত্র নির্মাতা ও প্রাক্তন জেলা গভর্ণর মরহুম লায়ন আব্দুল জব্বার খাঁন। এ কারণে বাংলাদেশে লিওইজমের প্রতিষ্ঠাতাও বলা হয় তাকে।-এমনটি জানান তিনি।

তিনি আরো উল্লেখ করেন, ১২ থেকে ৩০ বছর বয়সী সমাজ সচেতন, সৎ চরিত্রবান ও মানব সেবার মনোভাব সম্পন্ন তরুণ কিংবা তরুণী লিও সদস্য হওয়ার যোগ্যতা রাখেন। এক্ষেত্রে পরিচিত লিও ক্লাবের সাথে যোগাযোগ করে আগ্রহ প্রকাশ এবং নিয়মিত সভায় উপস্থিতির মাধ্যমে নিজেকে লিওইজমের সাথে সম্পৃক্ত করতে পারবেন বলেও জানান তিনি।

ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক লিও রমজান আলীর সঞ্চালনায় সেমিনারের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন লিও রাসেল মিয়া। লিওদের আনুগত্যের শপথ পাঠ করান লিও দাইয়ান আহমদ। সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- লায়ন্স শিশু হাসপাতালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা লায়ন মাহবুবুল হক, লায়ন আব্দুল্লাহ আল মামুন, লায়ন মোসাব্বির মো. মুছা।

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- লিও জাকির, লিও আবছার আলিম, লিও বদরুল, লিও নাইম, লিও মাসুদ প্রমুখ। সেমিনারের শেষে লিও ক্লাবস ইন্টারন্যাশনালের ৬০বছর পূর্তি উপলক্ষে কেক কাটার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

শেয়ার করুন