সিলেট-বালাগঞ্জ-সুলতানপুর সড়ক সংস্কারের দাবীতে লন্ডনে বাংলাদেশ দূতাবাসে প্রবাসীরা

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: গত সোমবার লন্ডনের বাংলাদেশ দূতাবাসে দেখা করে সেখানে বসবাসরত প্রবাসীরা, বালাগঞ্জ-সুলতানপুর সড়ক সংস্কারের দাবী সংবলিত একটি চিঠি রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের বরাবরে প্রেরণ করেন। চিঠিতে লন্ডনে বসবাসরত শতাধিক প্রবাসীর স্বাক্ষর রয়েছে।

এসময় প্রবাসীরা রাষ্ট্রদূতকে জানান, তারা সবসময় এখানে বেড়ে উঠা প্রজন্মকে নাড়ীর সাথে যোগাযোগ করিয়ে দিতে ঘন ঘন দেশে যেতে চান, কিন্তু রাস্থা-ঘাটের এমন বেহাল দশায় বাচ্চারা দেশে ভ্রমনে তাদের আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে। অনেক অভিবাবক ভাঙ্গা রাস্থার ভয়ে ছেলেমেয়েদের দেশে নিয়ে যেতে ভয় পাচ্ছেন। এমতাবস্থায় প্রবাসীরা সিলেট জেলার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি দ্রুত সংস্কারের জন্য যোগাযোগ মন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এসময় রাষ্ট্রদূত প্রবাসীদের এ দাবীর প্রতি সহানুভূতি প্রকাশ করে দ্রুত তা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পৌঁছিয়ে দেয়ার আশ্বাস দেন। প্রবাসীদের এ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন শাহনূর চৌধুরী। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন। ব্রেন্টের সাবেক মেয়র পারভেজ আহমেদ, লন্ডনের টাওয়ার হেলমেটের সাবেক ডেপুটি আলাউদ্দিন, গহরপুর এ্যাসোসিয়েশন ইউকের সভাপতি আবুল মিয়া, সহ সভাপতি আলী আহমদ নেছাওর , বাংলাদেশ বিমানের কর্মকর্তা শামিমুর রহমান খান, লেখক, সাংবাদিক মুহাম্মাদ শরীফুজ্জামান প্রমুখ।

প্রসঙ্গত ২৪ কিলোমিটার দীর্ঘ জেলার গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কের ৯০ শতাংশেরই কার্পেটিং উঠে পাথর বেরিয়ে এসেছে, কোথাও তৈরি হয়েছে গভীর গর্ত। এমনকি দীর্ঘদিন ধরে রাস্থাটি এমন বেহাল থাকায় স্থানীয় ব্যক্তিরা এ সড়কের নামকরণ করেছেন ‘মরা সড়ক’।

জেলার দক্ষিণ সুরমা, বালাগঞ্জ, ওসমানীনগর ও বিশ্বনাথ উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের অন্তত পাঁচ লাখ মানুষের চলাচলের এটিই একমাত্র সড়ক। প্রতিদিন গড়ে ২৫ থেকে ৩০ হাজার মানুষ এ সড়ক দিয়ে যাতায়াত করে। দীর্ঘদিন ধরে সড়কটি বেহাল পড়ে থাকলেও তা পুনর্নির্মাণে সংশ্লিষ্টদের কোনো উদ্যোগ চোখে পড়ছে না। অথচ স্থানীয় ব্যক্তিরা গুরুত্বপূর্ণ এ সড়ক সংস্কারের দাবি জানিয়ে মাঝেমধ্যেই সভা-সমাবেশ-মানববন্ধন করছেন।

শেয়ার করুন