সিংহভাগ ব্যাংকের মুনাফায় প্রবৃদ্ধি

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: চলতি বছরের প্রথম নয় মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর) পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত সিংহভাগ ব্যাংকের মুনাফায় প্রবৃদ্ধি হয়েছে। তালিকাভুক্ত ৩০টি ব্যাংকের মধ্যে ২২টি ব্যাংকের শেয়ারপ্রতি মুনাফা আগের বছরের নয় মাসের তুলনায় বেড়েছে।

অপরদিকে আগের বছরের তুলনায় শেয়ারপ্রতি মুনাফা কমেছে ৮টি ব্যাংকের। অবশ্য এ ৮টি ব্যাংকের মধ্যে ৩টি ব্যাংকের মুনাফা চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) আগের বছরের তুলনায় বেড়েছে।

শেয়ারপ্রতি মুনাফা আগের বছরের তুলনায় বেড়েছে এমন ব্যাংকের তালিকায় রয়েছে, ব্যাংক এশিয়া, প্রাইম ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, রূপালী ব্যাংক, পূবালী ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, যমুনা ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, ডাচ-বাংলা ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক, ট্রাস্ট ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক, আল-আরাফা ইসলামী ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক, সাউথইস্ট ব্যাংক, দি সিটি ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক এবং উত্তরা ব্যাংক।

এর মধ্যে সাউথইস্ট ব্যাংক, দি সিটি ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক এবং উত্তরা ব্যাংকের শেয়ারপ্রতি মুনাফা আগের বছরের প্রথমার্ধের (জানুয়ারি-জুন) তুলনায় চলতি বছরের প্রথমার্ধে কমেছিল। তবে তৃতীয় প্রান্তিকে এসে এ ব্যাংকগুলোর মুনাফায় বড় ধরনের উত্থানে নয় মাসের হিসাবে চলতি বছর আগের বছরের তুলনায় মুনাফা বেড়েছে।

এই চারটি ব্যাংকের মধ্যে চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে শেয়ারপ্রতি সব থেকে বেশি মুনাফা হয়েছে সাউথইস্ট ব্যাংকের। জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে ব্যাংকটি শেয়ারপ্রতি মুনাফা করেছে ১ টাকা ২৯ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৭ পয়সা। আর মুনাফার প্রবৃদ্ধি সব থেকে বেশি হয়েছে দি সিটি ব্যাংকের। আগের বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা ছিল ৪৮ পয়সা, যা চলতি বছর বেড়ে হয়েছে ৯১ পয়সা।

তথ্য পর্যালোচনায় দেখা গেছে, চলতি বছরে নয় মাসে শেয়ারপ্রতি মুনাফা আগের বছরের তুলনায় সব থেকে বেশি বেড়েছে রূপালী ব্যাংকের। আগের বছরের নয় মাসে ব্যাংকটির মুনাফা ঋণাত্মক থাকায় মুনাফা বৃদ্ধির হার বের করা সম্ভব হয়নি। তবে আগের বছরের তুলনায় প্রতিটি শেয়ারের বিপরীতে রূপালী ব্যাংকের শেয়ারপ্রতি মুনাফা বেড়েছে ৮ টাকা ৮৬ পয়সা।

মুনাফার প্রবৃদ্ধিতে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে প্রাইম ব্যাংক। এ প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা আগের বছরের তুলনায় বেড়েছে ৫২২ শতাংশ। ৩৪৩ শতাংশ মুনাফায় প্রবৃদ্ধি হয়ে এর পরের স্থানেই রয়েছে ডাচ-বাংলা ব্যাংক।

অবশ্য শেয়ারপ্রতি মুনাফার দিক থেকে চলতি বছরে শীর্ষে রয়েছে ডাচ-বাংলা ব্যাংক। চলতি বছরের নয় মাসে এ প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয়েছে ১০ টাকা ২৬ পয়সা। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ব্র্যাক ব্যাংকের শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয়েছে ৪ টাকা ৪২ পয়সা। আর ৩ টাকা ৩৪ পয়সা শেয়ারপ্রতি মুনাফা নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইস্টার্ন ব্যাংক।

এদিকে চলতি বছরের জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর সময়ে শেয়ারপ্রতি মুনাফা কমে যাওয়া ব্যাংকগুলোর মধ্যে রয়েছে- ন্যাশনাল ব্যাংক, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক, এবি ব্যাংক, মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ব্যাংক এবং আইসিসি ইসলামী ব্যাংক।

এর মধ্যে ন্যাশনাল ব্যাংক, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক এবং ঢাকা ব্যাংকের মুনাফা চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে আগের বছরের তুলনায় বেড়েছে। ব্যাংক তিনটির মধ্যে সব থেকে বেশি মুনাফা বেড়েছে সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংকের। প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা চলতি বছরের জুলাই-সেপ্টেম্বরে হয়েছে ৬০ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৩১ পয়সা।

আর আইসিবি ইসলামী ব্যাংক বাদ দিলে চলতি বছরের নয় মাসে আগের বছরের তুলনায় মুনাফা কমার শীর্ষে রয়েছে এবি ব্যাংক। প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা আগের বছরের তুলনায় কমেছে ১ টাকা ১৩ পয়সা। ৯৪ পয়সা শেয়ারপ্রতি মুনাফা কমে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) সাবেক চেয়ারম্যান ড. এবি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, আমাদের শেয়ারবাজারে ব্যাংকগুলো বড় ধরনের ভূমিকা রাখে। ২০১৬ সালে অধিকাংশ ব্যাংক বিনিয়োগকারীদের ভালো লভ্যাংশ দিয়েছে। এখন যদি ব্যাংকগুলো মুনাফা ভালো করে তবে অবশ্যই তা ব্যাংক ও শেয়ারেরবাজারের জন্য ভালো লক্ষণ। তবে ব্যাংকগুলোর ঋণ বিতরণ কর্যক্রম মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করতে হবে। ব্যাংকগুলোর যাচাই-বাছাই বিহীন ঋণ দেয়ার পথ বন্ধ করতে হবে।

শেয়ার করুন