সাংবাদিক উৎপলকে ২৪ ঘণ্টায় ফিরিয়ে না দিলে কঠোর কর্মসূচি

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: নিখোঁজ সাংবাদিক উৎপল দাসকে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ফিরিয়ে না দিলে কঠোর কর্মসূচির হুশিয়ারি দিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা। এসময় কান্না ভেজা কন্ঠে উৎপলকে ফিরিয়ে দেয়ার দাবি জানান তার পরিবারের সদস্যরাও।

বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন আয়োজিত কর্মসূচিতে এ হুশিয়ারি দেয়া হয়।

এসময় সাংবাদিক নেতারা বলেন, ‘আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে উৎপল দাসের সন্ধান চাই। অন্যথায় কঠোর কর্মসূচির ঘোষণা দেয়া হবে। এই আন্দোলন সারাদেশে ছড়িয়ে দেয়া হবে। প্রয়োজনে রাস্তা অবরোধ করা হবে।’

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল বলেন, ‘আজ আমরা খুব অসহায় বোধ করছি। কোন মুখে উৎপলের পরিবারের সামনে দাঁড়াবো। শুধু উৎপল নয় এর আগের এমন ঘটনা ঘটেছে। আমরা এ ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানায়।’

তথ্যমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কঠোর সমালোচনা করে বুলবুল বলেন, ‘আপনারা বিভিন্ন কাজে ব্যস্ত আছেন। প্রতিদিন সন্ধ্যায় আপনারা নাচ-গানের অনুষ্ঠান করছেন কিন্তু উৎপলের পরিবারের সঙ্গে একবার দেখা করতে পারছেন না।’

তিনি উৎপলের পরিবারের উদ্দেশ্যে আরো বলেন, ‘তথ্যমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পুলিশ প্রধান কিছু না বললেও উৎপলের সহকর্মীরা আপনাদের পাশে আছে। উৎপল ফিরে না আসা পর্যন্ত আমরা একের পর এক কর্মসুচি দিয়ে যাব।’

উৎপলের বাবা চিত্ত রঞ্জন দাস বলেন, ‘আজ আমার কথা বলার কোন শক্তি নাই। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুতি আমার ছেলেকে ফিরিয়ে দিন।’

জাতীয় প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক শাহেদ চৌধুরী বলেন, ‘সাংবাদিকদের অভিভাবক তথ্যমন্ত্রী এখন পর্যন্ত কোনো স্টেটমেন্ট দেননি। কিন্তু রাষ্ট্রের যে কোনো বিষয়ে তিনি মন্তব্য করেন। তিনি আর্টিকেল লেখতে পছন্দ করেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও এ বিষয়ে কিছু বলেন নি। আমরা এর প্রতিবাদ জানায়।’

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বাদশা বলেন, ‘যে সংবিধান অনুযায়ী আপনারা নির্বাচন করেছেন, যে সংবিধান অনুযায়ী আপনারা সংসদে বসে দেশ পরিচালনা করছেন। সে সংবিধানে আছে নাগরিকের অধিকার নিশ্চিত করা। কিন্তু সাংবাদিক উৎপল দাস ২২ দিন ধরে নিখোঁজ কিন্তু আপনারা এ বিষয়ে কিছু বলছেন না। এর তীব্র নিন্দা জানায়।’

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সাবেক যুগ্ম মহাসচিব অমিয় ঘটক পুলক বলেন, ‘সরকারি কর্মকর্তার কুকুর হারিয়ে গেলে ১২ ঘণ্টার মধ্যেই খুঁজে বের করা হয়। কিন্তু জলজ্যান্ত একজন মানুষ ২২ দিন যাবত নিখোঁজ তাকে কেন খুঁজে বের করা হচ্ছেনা এর জবাব চাই।’

তিনি আরো বলেন, ‘উৎপলকে অক্ষত অবস্থায় ফিরে পেতে চাই। সাংবাদিকতা বিপন্ন হোক এটা আমরা চাইনা। প্রয়োজনে কর্ম বিরতি হবে। সাদা কাগজ ছাপা হবে। কারণ এটা গণতন্ত্রের প্রশ্ন।’

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের প্রচার সম্পাদক আখতার হোসেন বলেন, ‘উৎপলকে ফিরে না পাওয়ার লজ্জা আইজিপি, ডিএমপি কমিশনার, তথ্যমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর। সাংবাদিক সমাজ উৎপলকে অক্ষত অবস্থায় ফিরে পেতে চায়। আমি উৎপলকে ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করি।’

কর্মসূচিতে অন্যন্য বক্তারা বলেন, ‘এতদিন সাংবাদিকেরা অন্যদের নিখোঁজ হওয়ার সংবাদ লিখে আসছেন। এখন তারা নিজেরাই এর শিকার। সাংবাদিক সমাজ উৎপলকে অক্ষত অবস্থায় ফিরে পেতে চান। তারা উৎপলকে ফিরে পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।’

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরীর সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন- ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ, বৈশাখী টেলিভিশনের প্রধান বার্তা সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, ঢাকা সাব এডিটর কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, সাংবাদিক রাজীব আহমদ, উম্মুল ওয়ারা সুইটি, তাসকিনা ইয়াসমিনসহ অনেকে।

শেয়ার করুন