বিএনপির সাবেক এমপি ওহাবের ৮ বছরের কারাদণ্ড, হরতাল

সিলেটের সকাল ডেস্ক :: দুর্নীতির মামলায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, ঝিনাইদহ-১ (শৈলকুপা) আসনের সাবেক এমপি ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আলহাজ আব্দুল ওহাবকে ৮ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন যশোরের স্পেশাল জজ আদালত। একইসাথে ৯৩ লাখ ৩৬৯ টাকার সম্পদ বাজেয়াপ্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার (৩০ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে যশোরের স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক নিতাই চন্দ্র সাহা এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণা শেষে আব্দুল ওহাবকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক।

সরকারপক্ষের আইনজীবী দুদকের পিপি সিরাজুল ইসলাম জানান, ২০০৮ সালের ১৫ মে আব্দুল ওহাব দুদকে তার সম্পদ বিবরণী জমা দেন। প্রাথমিক তদন্তে সম্পদ গোপন ও জ্ঞাত আয় বর্হিভূত সম্পদ অর্জনের তথ্য পাওয়ায় তার নামে ঝিনাইদহের শৈলকুপা থানায় মামলা হয়। এরপর দুদক যশোরের উপ-পরিচালক নাসির উদ্দিন তদন্তে ৯৩ লাখ ৩৬৯ টাকার সম্পদ গোপন ও জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের প্রমাণ পান।

আদালতে দুদুকের আনা অভিযোগ সত্য প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক দুর্নীতি দমন আইনের ২৬ (২) ধারায় ৩ বছর কারাদণ্ড, ১৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড এবং ২৭(১) ধারায় ৫ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ৩০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন। এছাড়া অর্জিত জ্ঞাত আয়বহির্ভূত ৯৩ লাখ ৩৬৯ টাকার সম্পদ রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্তের নির্দেশ দেন। রায়ে সাজা আলাদা ভাবে চলবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন মামলার বাদীপক্ষ।

রায় ঘোষণার পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে শৈলকুপা বিএনপির নেতৃবৃন্দ। সোমবার বেলা ১১টার দিকে প্রেসক্লাব যশোরে তাৎক্ষণিক এক সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল হাসান খান দিপু বলেছেন, ‘এই রায় সরকারের নীল নকশার অংশ। মিথ্যা মামলায় রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত হয়ে মামলা দিয়ে সাজার ব্যবস্থা করেছে। এই রায়ের বিপক্ষে আমরা উচ্চ আদালতে যাবো। এবং সেখানে ন্যায় বিচার পাবো বলে আশা করি।’

একই সাথে মঙ্গলবার সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত শৈলকুপা উপজেলায় হরতালের ঘোষণা দেন তিনি। এ দিন সকাল থেকে বিএনপির নেতাকর্মীরা রাজপথে থেকে অন্যায়ের প্রতিবাদ করবে।

শেয়ার করুন