পৃথিমপাশা নবাব বাড়িতে তাজিয়া মিছিল

সিলেটের সকাল রিপোর্ট :: প্রতিবছরের মতো এবারও মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়ার পৃথিমপাশা নবাব বাড়িতে ধর্মীয় ভাব-গম্ভীর্য ও নানা আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে পবিত্র আশুরা। রোববার এ উপলক্ষে শোকের নিশান আলম, পাঞ্জা, তাজিয়া, ছুরিমাতম, হাতি সহকারে শোক মিছিল বের হয়।

এতে শিয়া মতাবলম্বীসহ হাজার হাজার লোকের সমাগম ঘটে। বিকেল ৩টায় নবাব বাড়ির ইমামবাড়া থেকে বিশাল মিছিল শুরু হয়ে রবিরবাজারের পাশ্ববর্তী ‘কারবালা ময়দান’ নামক স্থানে এসে ছুরি মাতমের মাধ্যমে সমাপ্তি ঘটে।

নবাব বাড়ীর তাজিয়া মিছিলে নাশকতা এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা ছিলো লক্ষ্যণীয়। পোশাকি পুলিশের পাশাপাশি ততপর ছিলো র‌্যাব ও সাদা পোষাকি পুলিশও।

নবাব বাড়ি মহরমের মোতাওয়াল্লি ও সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট নওয়াব আলী আব্বাস খান বলেন ‘তারা তিন শত বৎসর যাবৎ এ ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করে আসছেন। মহরম মাসের প্রথম দিন থেকেই নবাব বাড়ি, তরপি বাড়ি, পাল্লাকান্দি সাহেব বাড়িসহ অন্যান্য স্থানে মজলিস, মাতম, নোওহা, জারিসহ অন্যান্য শোক অনুষ্ঠান পালিত হয়। সর্বশেষ দশ তারিখে তাজিয়া মিছিলের মাধ্যমে সমাপনি ঘটে।’

আরবি ‘তাজিয়া’ উর্দু ও ফারসি ভাষায় প্রচলিত একই শব্দ। এর অর্থ সাধারণত শোক ও সমবেদনা জানানো। বিশেষকরে, শিয়া সম্প্রদায়ের লোকেরা ইমাম হোসেন (রা.)-এর শাহাদত লাভের বিষাদময় স্মৃতির উদ্দেশ্যে তা পালন করে।

বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ সাল্লাললাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর ওফাতের পর ৬১ হিজরীর পবিত্র এই দিনে ফোরাত নদীর তীরে কারবালার প্রান্তরে ঘটে শোকাবহ ঘটনা। সেই ঘটনায় তাঁরই প্রাণপ্রিয় দৌহিত্র ইমাম হোসেন পরিবারের সদস্য ও সহযোগীদের নিয়ে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ে এজিদ বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছিলেন।

শেয়ার করুন