‘বাংলাদেশের মমত্ববোধকে উপেক্ষা করার সুযোগ নেই’

সিলেটের সকাল ডেস্ক ।। রোহিঙ্গা মুসলিমদের আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ সরকার ও মানুষ যে ভাতৃত্ব ও মমত্ববোধ দেখিয়েছে তা উপেক্ষা করার কোনও সুযোগ নেই বলে মন্তব্য করেছেন জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআর এর শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপ্পো গ্র্যান্ডি।

রোববার কক্সবাজারের বিভিন্ন রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির পরিদর্শন শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ফিলিপ্পো গ্র্যান্ডি বলেছেন, ‘জাতিসংঘের অধিবেশন সমাপ্ত না করেই আমি বাংলাদেশে চলে এসেছি। আমি সেখানে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে আগ্রহী ছিলাম। তাঁর সঙ্গে দেখা করেছি। আমি আবারও বাংলাদেশ সীমান্ত খুলে দেয়ার জন্য গভীরভাবে কৃতজ্ঞ। কারণ, এবারই প্রথম নয়, এর আগেও শরণার্থীদের জন্য বাংলাদেশ সীমান্ত খুলে দিয়েছিল। বিশ্বের অনেক দেশ যেখানে শরণার্থীদের প্রতি শত্রুভাবাপন্ন সেখানে বাংলাদেশ সরকার ও মানুষ যে ভাতৃত্ব ও মমত্ববোধ দেখিয়েছে তা উপেক্ষা করার কোনও সুযোগ নেই।’

তিনি অারও বলেন, ‘বাংলাদেশর প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যখন তাঁর কথা হয়েছে তখন তিনি সমস্যা সমাধানের বিষয়টি মাথায় রাখার অনুরোধ করেছেন। এ ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির জন্য সুস্পষ্টভাবে মিয়ানমারের সহিংসতা দায়ী। এ মুহূর্তে সহিংসতা বন্ধ করতে হবে এবং মানবাধিকার সংস্থাগুলোকে রাখাইনের উত্তরে প্রবেশ করতে দিতে হবে।’

গ্র্যান্ডি বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের নিবন্ধনের যে প্রক্রিয়া চলছে, বাংলাদেশ সরকার সে কাজ করছে। সম্পদের সীমাবদ্ধতা আছে তারপরেও বাংলাদেশ কাজটি করে চলেছে। এ কাজে ইউএনএইচসিআর বাংলাদেশকে সমর্থন দিচ্ছে। জেনেভা থেকে একটি দল একাজে যুক্ত হয়েছে।’

শেয়ার করুন