পিয়াইন নদীর ছোবল থেকে বাউরভাগ গ্রাম রক্ষায় মানববন্ধন

মনজুর আহমদ, গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি।। সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার পূর্ব জাফলং ইউনিয়নের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া পিয়াইন নদী। নদীর পানির স্রোতে প্রতিনিয়ত ভাঙ্গছে নদীর সঙ্গে ঘেষে থাকা গ্রাম। গ্রামগুলোর মধ্যে চরম হুমকির মুখে রয়েছে বাউরভাগ গ্রাম। নদীর গর্ভে বিলিন হওয়ায় আশংকা ও হতাশায় সময় পার করছেন বাউরভাগ গ্রামবাসী। নদী ভাঙ্গনে এই সর্বনাশা বিপদ থেকে রক্ষা পিয়াইন নদীর পাড়ে মানববন্ধন করেছেন এলাকাবাসী। শনিবার সকাল ১১টায় বাউরভাগ, বাউরভাগ হাওর, নয়াগাঙ্গেরপার ও বাংলাবাজার এলাকার সহস্রাধিক নারী পুরুষ জড়ো হয়ে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেন।

মানববন্ধন কর্মসূচী পরবর্তী আলোচনা সভায় পূর্ব জাফলং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা লুৎফুর রহমান লেবু বলেন, পিয়াইন নদী ভাঙ্গন সরেজমিন ১৯৮৮ সালে পরিদর্শন করেছিলেন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদ। পরবর্তীতে ১৯৯১ সালে স্থানীয় সাংসদ ইমরান আহমদের প্রচেষ্টায় একটি দাতা সংস্থার মাধ্যমে সংগ্রাম বিজিবি ক্যাম্প হইতে বাংলা বাজার পর্যন্ত পিয়াইন নদীর উভয় পার্শ্বে শতাধিক কোটি টাকা ব্যয়ে নদী ভাঙ্গন রোধ করা হয়েছিল এবং তা ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত চলমান ছিল। সে সময়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নানা অনিয়ম করে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করায় বর্তমানে নদী গর্ভে প্রতিদিন বিলিন হচ্ছে শত শত বসত ঘর। এমতাবস্থায় স্থানীয় সংসদ সদস্যের পূর্ব জাফলং ইউনিয়নের পিছিয়ে পড়া বাউরভাগ, বাউরভাগ হাওর, নয়াগাঙ্গের পাড় ও বাংলা বাজার সহ নদী গর্ভে বিলিনের আশংকাগ্রস্থ সবকটি গ্রামের প্রতি সুদৃষ্টি জরুরী হয়ে পড়েছে। অনতি বিলম্বে এ সকল গ্রামে নদী ভাঙ্গন রোধে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ না হলে বিলিন হতে পারে এসব গ্রাম। মানববন্ধন কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করেন, স্থানীয় মুরব্বি আজির উদ্দিন, বাউর ভাগ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল মতিন, পূর্ব জাফলং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আহ্বায়ক মিনহাজুর রহমান, ব্যবসায়ী সিরাজ উদ্দিন, ইউ/পি সদস্য শাহ আলম, সাবেক সদস্য রিয়াজ উদ্দিন তালুকদার, উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি মাসুক আহমদ, আওয়ামীলীগ নেতা নজরুল শিকদার, রাধানগর মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা ছমির উদ্দিন, শিক্ষক আবুল কালাম আজাদ, বাউরভাগ ইসলামী যুব সংঘের সভাপতি হোসেন আহমদ প্রমুখ।

শেয়ার করুন