নাগরিকত্বের প্রমাণ ছাড়া রোহিঙ্গাদের ঢুকতে দেবে না মিয়ানমার

সিলেটের সকাল ডেস্ক ।। মিয়ানমারের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা উ থাউং তুন জানিয়েছেন, রাখাইন রাজ্য থেকে যারা পালিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে তাদেরকে নাগরিকত্বের প্রমাণ ছাড়া মিয়ানমারে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। বুধবার রাখাইনে স্টেট কাউন্সিলর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেছেন।

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমার তাদের নাগরিক বলে স্বীকার করে না। দেশটিতে সাংবিধানিকভাবে তাদের নাগরিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করে রাখতে ১৯৮২ সালে বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন পাশ করা হয়। এই আইনে বলা হয়, ১৮২৩ সালে মিয়ানমারে ব্রিটিশ শাসন শুরু হওয়ার পূর্ববর্তী সময়ে সেদেশে বাস করা ১৩৫টি গোত্রভুক্ত মানুষ মিয়ানমারের পূর্ণাঙ্গ নাগরিক হিসেবে গণ্য হবে। তবে রোহিঙ্গারা এর অন্তর্ভুক্ত নয়। সেই সুবাদে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব সম্পর্কিত কোনো কাগজপত্রও দেওয়া হয়নি।

উ থাউং তুন বলেছেন, ‘নাগরিকদের অবশ্যই প্রমাণ করতে হবে যে তারা কত বছর ধরে মিয়ানমারে বাস করছে। যদি তাদের কাছে কাগজপত্র থাকে তাহলে তারা ফিরে আসতে পারবে। তবে তারা যদি মিয়ানমারের নাগরিক না হয় তাহলে এটা সম্ভব হবে না।’

জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জানান, ইতিমধ্যে নাইপিদু, ইয়াঙ্গুন, মানডালে ও মাওলামায়াইং শহরে এ ব্যাপারে নিরাপত্তা সতর্কতা জারি করা হয়েছে। তাই মিয়ানমারের নাগরিকদের এ ব্যাপারে উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনো কারণ নেই।

শেয়ার করুন