‘ত্রাণ কার্যক্রমে সেনাবাহিনী শুক্রবার থেকে’

ডেস্ক রিপোর্ট:রোহিঙ্গাদের শরণার্থী ক্যাম্পের শেড নির্মাণ ও ত্রাণ কার্যক্রমে সেনাবাহিনী শুক্রবার (২২ সেপ্টেম্বর) অংশ নেবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার (২১ সেপ্টেম্বর) উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের জন্য ভারত সরকারের দেয়া ত্রাণ বিতরণ শেষে গণমাধ্যমকে এ কথা জানান মন্ত্রী।

প্রসঙ্গত, বেশ কয়েকদিন ধরেই বিভিন্ন মহল থেকে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি উঠছে। তারা মনে করেন, লাখ লাখ শরণার্থীর মাঝে সুষ্ঠুভাবে ত্রাণ বিতরণ করতে হলে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কোনো বিকল্প নেই। কারণ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে শরণার্থী সামাল দিয়ে সুনাম কুড়িয়েছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। এমন দাবির প্রেক্ষিতে ত্রাণ কার্যক্রমে সেনাবাহিনী মোতায়েনের ঘোষণা দেওয়া হল।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‌‘১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় প্রতিবেশী দেশ ভারত যেমন আমাদের পাশে ছিল, তেমনি এখনও পাশে আছে। বাংলাদেশের যেকোনো দুঃসময়ে ভারত আমাদের সাথেই থাকে।’

মিয়ানমারকে চাপ প্রয়োগ করে তাদের নাগরিকদের ফেরত নিয়ে যেতে ভারত সরকার বাংলাদেশের পাশে থাকবে বলে আশা করেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘মিয়ানমার সরকারের মনোভাব ও গতিবিধি আমরা এখনো পরিষ্কার বুঝতে পারছি না। বিশ্বব্যাপী রোহিঙ্গাদের পক্ষে জনমত জোরদার হচ্ছে। আন্তর্জাতিকভাবে চাপ প্রয়োগ করে রোহিঙ্গাদের তাদের দেশে ফিরিয়ে নেয়ার ব্যাপারে সরকার খুব আশাবাদী।’

মন্ত্রী বলেন, ‘জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে বিশ্বনেতারা যেভাবে রোহিঙ্গাদের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন, তাতে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে নেয়ার প্রক্রিয়া আরও বেগবান হবে।’

রোহিঙ্গাদের মাঝে ভারত সরকারের ত্রাণ বিতরণকালে আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে ভারতীয় দূতাবাস কাউন্সিলর অরুন্ধতী, ডেপুটি কাউন্সিলর সিনহা, আওয়ামী লীগের যু্গ্ম-সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামিম, সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান প্রমুখ।

শেয়ার করুন