‘তত্ত্বাবধায়ক সরকার’ পুনর্বহাল চায় জমিয়ত

সিলেটের সকাল ডেস্ক ।। তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহাল, ভোটে সেনাবাহিনি মোতায়েন, সব দলের সমান সুযোগসহ ১১ দফা দাবি জানিয়েছে জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে নির্বাচন কমিশনের সাথে সংলাপে এসব দাবি তুলে ধরে দলটি। সংলাপে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদা সভাপতিত্ব করেন। দলটির মহাসচিব মাওলানা নূর হোছাইন কাসেমী নেতৃত্বে ১২ সদস্যের প্রতিনিধি দল কমিশনের সঙ্গে সংলাপ করে।

সংলাপ শেষে দলটির মহাসচিব সাংবাদিকদের জানান, ‘জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের পক্ষ থেকে বলা হয়- দলীয় সরকারের অধীনে অতীতের নির্বাচনে কারচুপি ও পেশিশক্তির ব্যবহার অভিযোগ উঠেছে। আর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি পেয়েছে। তাই আমরা মনে করি তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহাল করার ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনকে উদ্যেগ গ্রহণে জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।’

কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী কোঠা যে নির্ধারণ করেছে ইসি এটাকে অনধিকার চর্চা হিসেবে মন্তব্য করে নূর হোছাইন কাসেমী বলেন, ‘এটি দলগুলো তার নিজেদের প্রয়োজনেই করবে সেখানে কত নারী সদস্য হবে।’

জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের অন্য দাবিগুলো হলো-
নির্বাচনের এক বছর আগে থেকেই রাজনৈতিক দলগুলোর জন্য অবাধ সভা-সমাবেশ ও রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার পরিবেশ তৈরিতে নির্বাচন কমিশনকে উদ্যেগ গ্রহণ করা; ভোটার তালিকা হালনাগাদ করে অবৈধ ভোটার থাকলে তা বাদ দেয়া; অবৈধ ও কালো টাকার মালিকরা নির্বাচনে যেন অংশগ্রহণ করতে না পারে সে ব্যবস্থা করা, নিরপেক্ষ পর্যবেক্ষক নিয়োগ করা এবং এক বছর আগে সকল সংস্থা ও কর্মীদের নাম পরিচয় নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে ও গণমাধ্যমে প্রকাশ করা; সুষ্ঠু ভোটের স্বার্থে সেনাবাহিনি নিয়োগ, স্বতন্ত্র প্রার্থীদের নির্বাচনে অংশগ্রহণে উৎসাহিত করার জন্য ভোটারদের সমর্থনসূচক স্বাক্ষর নমিনেশন পেপারের সাথে জমা দেয়ার বাধ্যবাধকতার আইন বিলুপ্ত করা, নির্বাচন কমিশনকে নিরপেক্ষভাবে কাজ করা, প্রবাসীদের ভোটাধিকার নিশ্চিত করা, মানোনয়ন পত্র জমা দেওয়া ও নির্বাচনের তারিখের মধ্যে অন্তত ৪০ দিন সময় রাখা।

এদিকে অাজ বিকেল ৩টায় ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) সঙ্গে সংলাপে বসবে কমিশন। গত ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের প্রতিনিধি দিয়ে সংলাপ শুরু করে নির্বাচন কমিশন। এরপর ১৬ ও ১৭ আগস্ট গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সঙ্গে বসে ইসি। আর গত ২৪ আগস্ট থেকে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপে বসেছে নির্বাচন কমিশন। এখন পর্যন্ত ১৭টি রাজনৈতিক দল এই সংলাপে অংশ নিল।

শেয়ার করুন