‘জনগণের ভোটে নির্বাচিত সরকার চাই’ ॥ কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন

সিলেটের সকাল রিপোর্ট ।। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারকে ‘অনির্বাচিত’ সরকার আখ্যা দিয়ে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন বলেছেন, ‘অনির্বাচিত’ এই সরকার বিনা ভোটে জনগণের কাঁধে চেপে আছে। তাদের কোন অস্থিত্ব নেই। আগামীতে এমন নির্বাচন প্রতিহত করা হবে। জনগণ ভোটের মাধ্যমে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে নির্বাচিত করবেন। এজন্য বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার নির্দেশেই সকলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে দলের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

মঙ্গলবার ছাতক পৌরশহরের বাগবাড়িস্থ দলীয় কার্যালয়ে ছাতক উপজেলা ও পৌরসভা এবং দোয়াবাজারের বিএনপি এবং অঙ্গসংগঠনের সর্বস্থরের নেতাকর্মীদের নিয়ে আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, বিশৃঙ্খলার কারণে দলের ক্ষতি হয়। এ কারণে সুনামগঞ্জে কোন গ্রুপিং নয়; সকল বিভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। এছাড়া আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক-দোয়ারাবাজার) নির্বাচনী আসনে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া যাকে দলীয় মনোনয়ন দেবেন তার পক্ষে দলের সর্বস্থরের নেতাকর্মীদের কাজ করারও আহ্বান জানান তিনি। এছাড়া ভোট বিপ¬বের মাধ্যমে জালিম সরকারের বিদায় নিশ্চিত করতে হবে- বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

দোয়ারাবাজার উপজেলা বিএনপির আহবায়ক শামসুল হক নমুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুল।

বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপির সহ সভাপতি আব্দুল লতিফ জেপি, সেলিম উদ্দিন, আবুল কালাম আজাদ, আশিকুর রহমান আশিক, আনিসুল হক, জেলা যুবদলের আহ্বায়ক আনসার উদ্দিন, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা খানম, শ্রমিকদল কেন্দ্রিয় কমিটির সহ-সাধারন সম্পাদক হুমায়ুন কবির, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, গোলাম আম্বিয়া মাজকুর পাবেল, বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়শা খানম, ছাতক উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাছিমা আক্তার ছানা।

উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক হিফজুল বারী শিমুল, পৌর বিএনপির আহ্বায়ক সামছুর রহমান সামছু এবং উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ফয়জুর আহমদ পাভেলের যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- জেলা যুবদলের আহ্বায়ক আনসার উদ্দিন, বিএনপি নেতা আব্দুর রহমান, হাজী জুবেদ আলী, আলতাবুর রহমান খছরু, লায়েক শাহ, হিফজহুল বারী শিমুল, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবু হেনা আজিজ, আব্দুল বারী, আরিফুল ইসলাম জুয়েল, মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দিন, ডাঃ আসলাম আহমদ, পৌর কাউন্সিলর জসিম উদ্দিন সুমেন, মহিলা কাউন্সিলর তাসলিমা জান্নাত কাকলী, এমরাজ তালুকদার, ফয়জুর রহমান, নজরুল ইসলাম, শফি উদ্দিন, বাবুল মিয়া মেম্বার, নাজমুল হোসেন, শাহজাহান, শফিকুল আলম, জাহেদুল ইসলাম আহবাব, আলী আশরাফ তাহিদ, এনামুল কবির, আব্দুর রহিম মেম্বার, ছায়াদুজ্জামান, জুবায়ের আহমদ মজুমদার, এনামুল হক, তাজৃুল ইসলাম, দেলোয়ার হোসেন, রুকন উদ্দিন, মনির উদ্দিন মেম্বার, কয়েছ আহমদ, সাদক আলী, হাফিজুল ইসলাম জুয়েল, বাকী বিল¬াহ, আব্দুস সোবহান, শফিকুল আলম, রুহুল আমিন, আতাউর রহমান এমরান, হাজী রুহুল আমিন, আব্দুল মমিন, বাবুল আহমদ মেম্বার, জমশিদ আলী, সুলতান মাহমুদ, সুরুজ মিয়া, এখলাছুর রহমান, আব্দুল কাবির, কাজী মাওলানা আব্দুস ছালাম, ইজ্জত আলী, আবুল হোসেন, আফতাব আলী, জেইউ আহার, রফিক আহমদ, খায়ের উদ্দিন, রবিউল ইসলাম, কবির আহমদ, খলিলুর রহমান, কাজী ইসলাম উদ্দিন, লিজন তালুকদার, জাহাঙ্গির আলম রাসেল, আব্দুল মুনিম মামনুন, আব্দুল¬াহ আল মামুন, এমরান আহমদ, সাচ্ছা আবেদীন, ফখর উদ্দিন, তোফায়েল আহমদ, এজে মনন, সুহেল মিয়া, ইসমাইল হোসেন সানি, নোমান ইমদাদ কানন, নিজাম উদ্দিন, রিফাত আহমদসহ বিএনপি, যুবদল, কৃষকদল, স্বেচ্ছাসেবকদল, শ্রমিকদল ও ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দ।

সভা শেষে দলীয় কার্যালয় থেকে এক বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহরের শ্যামলী বাস কাউন্টারের আসলে পুলিশি বাঁধার মুখে পড়ে। পরে মিছিলকারীরা দলীয় কার্যালয়ে ফিরে যায়। শান্তিপূর্ন মিছিলে পুলিশ বাঁধা দেয়ার ঘটনায় জেলা ও উপজেলা বিএনপি নেতৃবৃন্দ ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করেছেন।

এর আগে সকালে ঈদ পুনর্মিলনীকে কেন্দ্র করে দুই উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন-ওয়ার্ড থেকে মিছিল নিয়ে নেতাকর্মীরা ছাতকের দলীয় কার্যালয়ে এসে জড়ো হতে থাকেন। এ কারণে অনুষ্ঠান শুরুর আগেই কানায় কানায় পরিপূর্ণ হয়ে যায় পুরো মাঠ। তাছাড়া মাঠ ছাড়িয়ে পাশের রাস্তায়ও অবস্থান নেন নেতাকর্মীরা। দীর্ঘদিন পর এমন একটি অনুষ্ঠান আয়োজনের কারণে নেতাকর্মীদের মধ্যে উচ্ছাস দেখা গেছে।

শেয়ার করুন