স্ত্রী অন্যের ঘরণী, হত্যায় দায়ে জেল খাটছেন যুবক

download (2)সিলেটের সকাল ডেস্ক : স্ত্রী হত্যার দায়ে দুবছর ধরে জেলের ঘানি টানছেন এক যুবক। কিন্তু হঠাৎই একদিন জানতে পারলেন তার স্ত্রী অপর এক পুরুষের সঙ্গে দিব্যি সংসার পেতে বসেছে।

এমন অবাক করা ঘটনাই ঘটেছে ভারতের বিহারের মুজাফফরপুরে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ২০১৫-এ মুজাফফরপুরের বাসিন্দা মনোজ শর্মার সঙ্গে বিয়ে হয় বছর পঁচিশ বছরের স্থানীয় যুবতী পিংকীর।

এর মাস খানেকের মধ্যেই নিখোঁজ হন পিংকী। যৌতুকের জন্য স্বামী মনোজ তাকে খুন করেছে বলে থানায় অভিযোগ জানায় পিংকীর পরিবার।

এ ঘটনার কিছুদিন পর সরাইয়া থানা এলাকা থেকে এক মহিলার গলিত লাশ উদ্ধার হয়। পিংকীর বাড়ির লোকজন সেটিকে পিংকীর দেহ বলেই শনাক্ত করে।

এরপর যৌতুকের জন্য অত্যাচার এবং খুনের দায়ে গ্রেফতার করা হয় মনোজ শর্মাকে। সেই থেকে স্ত্রীকে খুনের দায়ে জেল খাটছেন তিনি।

সম্প্রতি মনোজের পরিবার জানতে পারে পিংকী জব্বলপুরে অন্য এক পুরুষের সঙ্গে সংসার করছেন। এরপর তারা স্থানীয় থানায় যোগাযোগ করেন।

এমন খবর শুনে তো পুলিশ প্রসাশনের রাতের ঘুম হারাম। পুলিশ বলছে, বিয়ের আগে থেকেই স্থানীয় যুবক ময়ূর মালিকের সঙ্গে প্রেম ছিল পিংকীর। তাই বিয়ের এক মাস গড়াতে না গড়াতেই তার সঙ্গে চম্পট দেন ।

পিংকী আর ময়ূর মালিককে আপাতত মুজাফফরপুরে নিয়ে আসা হয়েছে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য।

বিহার পুলিশের এক আধিকারিক মনজিৎ সিংহ বলেন, ‘এখন আদালতে আগে প্রমাণ করতে হবে যে, পিংকী জীবিত এবং মনোজ শর্মা নির্দোষ। তবে যে বা যারা পিংকীর ‘দেহ’ শনাক্ত করেছিলেন, তাদের বিরুদ্ধেও একটি অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের মামলা রুজু করা হবে।’

শেয়ার করুন