সোনার দোকানে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট

25968_mdtrFFgjihbsiসিলেটের সকাল ডেস্ক ।। বনানীতে দুই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনায় আপন জুয়েলার্সে শুল্ক গোয়েন্দাদের চালানো দফায় দফায় অভিযানের পেক্ষাপটে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের ওপর হয়রানির অভিযোগ তুলে সারা দেশে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন সোনার দোকান মালিকরা।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বায়তুল মোকাররম মার্কেটে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়।

সভায় জুয়েলারি দোকানে হয়রানিমূলক অভিযান ও আমিন জুয়েলার্সে অভিযানের তীব্র নিন্দা জানানো হয়। তবে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আপন জুয়েলার্সের কোনও নাম উল্লেখ করা হয়নি। যদিও আপন জুয়েলার্সের ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার আমিন জুয়েলার্সেও অভিযান চালায় শুল্ক গোয়েন্দা পুলিশ।

গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা।

বনানী ধর্ষণ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় আপন জুয়েলার্সের মালিক ও সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক দিলদার আহমেদের ছেলে শাফাত আহমেদ অন্যতম প্রধান আসামি।

ছেলে অভিযুক্ত হলেও গতকাল বুধবার শুল্ক গোয়েন্দাদের জিজ্ঞাসাবাদের সাংবাদিকদের দিলদার জানান, তার ছেলে অভিযুক্ত হওয়ায় ব্যক্তিগতভাবে তার দোকান বন্ধ করে দেয়া হলে সারা দেশে সোনার দোকান বন্ধ হওয়া উচিৎ।

এদিকে ৬ দিনের রিমান্ড শেষে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়ার পর আপন জুয়েলার্সের মালিকের ছেলে শাফাত আহমেদকে বৃহস্পতিবার ফের কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

দুই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের ঘটনায় গত ০৬ মে শাফাতকে মূল আসামি করে মামলা করা হয়। এর পরই অভিযোগ আসে- তাদের ব্যবসায় অবৈধ বিষয় জড়িত। তারই সত্যানুসন্ধানে অভিযোগের ভিত্তিতে কয়েক দফা ওই জুয়েলার্সে অভিযান চালায় শুল্ক গোয়েন্দারা।

যদিও এই অভিযানকে হয়রানিমূলক আখ্যা দিয়ে আপন জুয়েলার্সের ব্যবসাকে বৈধ বলে দাবি করে জুয়েলার্স সমিতি।

এদিকে শুল্ক গোয়েন্দারা ইতোমধ্যে আপন জুয়েলার্সের একটি বিক্রয় কেন্দ্র সিলগালা করে দিয়েছে। একই সঙ্গে প্রায় ১৩ মণ সোনা ও হীরা জব্দ করার পরই মালিক দিলদারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করা হয়।

শেয়ার করুন