উ.কোরিয়া সাথে সম্পর্ক উন্নতি চান দ.কোরীয় প্রেসিডেন্ট

image-33581সিলেটের সকাল ডেস্ক : শপথ নিয়েই চির প্রতিদ্বন্দ্বী উত্তর কোরিয়া সফরে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন দক্ষিণ কোরিয়ার নতুন প্রেসিডেন্ট মুন জে ইন। বুধবার রাজধানী সিউলে জাতীয় সংসদে দেশটির ১৯তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিয়ে তিনি একথা জানান।

মঙ্গলবার দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটগ্রহণ হয়। উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই দেশটিতে এ নির্বাচনের আয়োজন করা হয়। সাবেক প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউন হাই তার ক্ষমতাকালে উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক চ্ছিন্ন করেছিলেন। কিন্তু প্রতিবেশী এ দেশটির সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে চান পার্কের স্থলাভিষিক্ত মুন।

শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে ৬৪ বছর বয়সী মুন জে-ইন জানান, দক্ষিণ কোরিয়ার বর্তমান নীতি থেকে সরে গিয়ে তিনি উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি ঘটাতে চান। সঠিক পরিস্থিতিতে উত্তর কোরিয়ার রাজধানী পিয়ংইয়ং সফরের কথাও জানান তিনি।

এছাড়া, সাম্প্রতিক দুর্নীতির কলঙ্কে দক্ষিণ কোরিয়ায় যে বিভাজনের সৃষ্টি হয়েছে, মুন তা অবসানের অঙ্গীকার করেন।

দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে পদত্যাগে বাধ্য হন সাবেক প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউন হাই। গত মার্চে অভিশংসিত হন তিনি। তিনিই দক্ষিণ কোরিয়ার প্রথম ও একমাত্র প্রেসিডেন্ট যাকে অভিশংনের মাধ্যমে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য করা হয়েছে। এরপর মঙ্গলবার দেশটিতে আগাম এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

বলা ভালো, মুন জে ইন উত্তর কোরীয় একজন শরণার্থীর সন্তান। উত্তর কোরিয়ার যেসব নাগরিক দক্ষিণ কোরিয়ায় পাড়ি দিয়েছিল তাদেরই একজন মুনের বাবা। ’৭০ এর দশকে ছাত্র থাকাকালে তিনি দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক শাসক পার্ক চুং হাইর বিরুদ্ধে আন্দোলনে অংশ নিয়ে কারাভোগ করেন। চুং হাই ছিলেন পদচ্যুত প্রেসিডেন্ট পার্ক গিউন হাইর বাবা।

মুন জে-ইন দক্ষিণ কোরিয়ার বিশেষ বাহিনীর সদস্য ছিলেন। পরে তিনি মানবাধিকার আইনজীবী এবং রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হন। ২০১২ সালে ডেমোক্রেটিক পার্টি অব কোরিয়া থেকে পার্ক গিউন-হাইর বিরুদ্ধে নির্বাচন করে পরাজিত হয়েছিলেন। সূত্র: বিবিসি

শেয়ার করুন