জামিন পেলেন সৈয়দা ইকবাল মান্দ বানু

IQBAL-MAND-BANUসিলেটের সকাল ডেস্ক : দুদকের এক মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছেন বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার
বেয়াইন সৈয়দা ইকবাল মান্দ বানু।

ঢাকার জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ কামরুল হোসেন মোল্লা রোববার শুনানি করে তার জামিন মঞ্জুর করেন।

দুদকের দেওয়া অভিযোগপত্র আমলে নিয়ে গত ১২ এপ্রিল এ আদালতই ইকবাল মান্দ বানুর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশ দিয়েছিল।

কয়েক ডজন মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা মাথায় নিয়ে গত নয় বছর ধরে পরিবারসহ লন্ডনে অবস্থান করছেন।

তার শাশুড়ি ইকবাল মান্দ বানু রোববার সকালে আত্মসমর্পণের জন্য আদালতে আসেন অ্যাম্বুলেন্সে করে।

আত্মসমর্পণের সময় আসামির এজলাসে উপস্থিতির নিয়ম থাকলেও ইকবাল মান্দ বানু আদালত ভবনের নিচে অ্যাম্বুলেন্সেই অবস্থান করেন।

তার আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী জামিনের আবেদন করে আদালতকে বলেন, অসুস্থতার কারণে তিনি আত্মসমর্পণের জন্য উপরে উঠতে পারেননি।

পরে আদালতের নির্দেশে দুদকের আইনজীবী মীর আহমেদ আলী সালাম নিচে গিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে ইকবাল মান্দ বানুকে দেখে আসেন এবং তার বক্তব্য শুনে বিচারক জামিন মঞ্জুর করেন।

এ জে মোহাম্মদ আলী ছাড়াও মাসুদ আহমেদ তালুকদার ও সানউল্লাহ মিয়াসহ বেশ কয়েকজন আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন শুনানিতে।

ইকবাল মান্দ বানু সাবেক নৌবাহিনী প্রধান রিয়ার অ্যাডমিরাল মাহবুব আলী খানের স্ত্রী। তাদের মেয়ে জোবাইদা খানের সঙ্গে ১৯৯৩ সালে খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমানের বিয়ে হয়।

জরুরি অবস্থার সময় ২০০৭ সালের ২৯ মে তারেক রহমানের সম্পদের হিসাব চেয়ে নোটিস দেয় দুদক। এরপর ৪ কোটি ৮১ লাখ ৫৩ হাজার ৫৬১ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন ও মিথ্যা তথ্য দেওয়ার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

শেয়ার করুন