হুমায়রা তাজরিয়ান রচিত কাব্য গ্রন্থ ‘পথের অঙ্ক’-এর প্রকাশনা

humayra tajriyan pic 2ডেস্ক রিপোর্ট: সিলেট সরকারী এমসি কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল প্রফেসর হায়াতুল ইসলাম আকঞ্জি বলেছেন, নতুন প্রজন্ম বই পড়া থেকে বিমুখ হচ্ছে। জ্ঞানের উৎকর্ষ সাধনে প্রযুক্তির পাশাপাশি তাদের বই পড়ার ও লিখার প্রতি আকৃষ্ট করতে হবে।
সোমবার সিলেট প্রেসক্লাব মিলনায়তনে তরুণ কবি হুমায়রা তাজরিয়ান পলির  ‘পথের অঙ্ক’ কাব্যগ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
সিলেট এমসি কলেজের ইংরেজী বিভাগের প্রধান হারুন-অর-রশিদের সভাপতিত্বে ও দৈনিক সিলেটের ডাক-এর সাহিত্য সম্পাদক এডভোকেট কবি আবদুল মুকিত অপির পরিচালনা সিলেট প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সভায় প্রফেসর হায়াতুল ইসলাম আকঞ্জি আরো বলেন, আমাদের অনেকেই এখন বই পড়তে চাই না এবং কিনতেও চাই না। আমাদেরকে এ ধারা থেকে বের হয়ে আসতে হবে। ‘পথের অঙ্ক’ কাব্যগ্রন্থটি পাঠ করলে সুন্দর পথের সন্ধান পাবে পাঠক। এই গ্রন্থে কবি পথের অঙ্ক মিলানোর চেষ্টা করেছেন। আমাদের সমাজে যে অসঙ্গতি রয়েছে-সেটাই মূলত কবি তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন। তার অনেক কবিতায় সামাজিক দুর্গতির কথা ওঠে এসেছে। কাব্যগ্রন্থটিতে কবি সামাজিক অস্থিরতা প্রচন্ডভাবে অনুভব করেছেন।
সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সিলেট লেখিকা সংঘের সভাপতি কবি লাভলী চৌধুরী, সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সময় টিভি ব্যুরো প্রধান ইকরামুল হক, গল্পকার সেলিম আউয়াল। সিলেট প্রেসক্লাবের পাঠাগার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাংবাদিক সাঈদ নোমানের স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে ‘পথের অঙ্ক’ কাব্যগ্রন্থের উপর মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন দৈনিক যায়যায়দিন এর সহ-সম্পাদক কবি পলিয়ার ওয়াহিদ। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কবি সৈয়দ আব্দুল্লাহ আল হাসান, সরকার কামরান, সুলতান আহমেদ, পিপড়া সম্পাদক কবি মিনহাজ ফয়সল, খলিলুর রহমান ফয়সল প্রমুখ। অনুষ্ঠানে কবির বই থেকে কবিতা আবৃত্তি করেন কবি জান্নাতুল শুভ্রা মনি ও মাহির আফরোজ মিতু।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কবি লাভলী চৌধুরী বলেন, ‘পথের অঙ্ক’ যারা করতে জানে তাদের পথ সুদৃঢ় ও সুন্দর হবে। কবি হুমায়রা তাজরিয়ানের চিন্তা চেতনা অনেক সুদুর প্রসারী। হুমায়রা তাজরিয়ান তার কবিতার সজিবতায় সজিব থাকবেন।

ইকরামুল হক ইকু বলেন, এই গ্রন্থটি পাঠ করলে মানুষ কবির জীবন সম্বন্ধে একটি ধারণা পাবে। জীবনের যে সমস্ত দিক রয়েছে, সেসমস্ত দিক কবি সুন্দরভাবে তুলে ধরেছেন।

অনুভুতি ব্যক্ত করতে গিয়ে কবি হুমায়রা তাজরিয়ান পলি বলেন, আমি সাহিত্যের একজন নবীন পাঠক। সাহিত্যানুরাগী হওয়ার কারণে আমার সাহিত্যের সূচনা হয়।
সভাপতির বক্তব্যে হারুন-অর-রশিদ বলেন, কবিতা মানুষের জীবনের কথা বলে। কবির কবিতায় মানবতা, একাকীত্ব ও যন্ত্রণার কথা বলা হয়েছে। একজন কবির ভেতরে যে যন্ত্রণা রয়েছে তা সবার যন্ত্রণা।

শেয়ার করুন