ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি শুরু

॥ মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম ॥

1392016693_21-05-newsnextbdশুরু হলো ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি। ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’-রক্তে রাঙানো সেই ফেব্রুয়ারি বাঙালির ভাষা আন্দোলনের মাস। এ মাসেই  বাঙালি জাতি শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় মাথা অনবত করবে ভাষা শহীদদের প্রতি।
১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি ঢাকায় রাজপথ রঞ্জিত হয় ভাষা শহীদদের রক্তে। শহীদ হন সালাম, বরকত, রফিক, জব্বার, শফিউর। ভাষা শহীদদের পথ বেয়েই সূচিত হয় শিক্ষা আন্দোলন, ১১ দফা আন্দোলন, ঊন সত্তরের গণঅভ্যুত্থান সর্বোপরি একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধ। ভাষা আন্দোলনের মাধ্যমেই উন্মেষ ঘটে বাঙালি জাতীয়তাবাদের।
বাংলা ভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে ফেব্রুয়ারি ছিল ঔপনিবেশিক প্রভূত্ব ও শাসন শোষণের বিরুদ্ধে বাঙালির প্রথম প্রতিরোধ এবং জাতীয় চেতনার প্রথম উন্মেষ। ১৯৪৮ সালের মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ ঢাকার রেসকোর্স ময়দানের ভাষণে উর্দুকে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা করার ঘোষণা দিলে ছাত্র জনতা বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। শুরু হয় দুর্বার আন্দোলন।
সংগ্রামশীল বাংলা ভাষা প্রাচীন যুগ থেকে মধ্যযুগ-মধ্যযুগ থেকে আধুনিক যুগ পর্যন্ত এসেছে নানা প্রতিকুলতার সাথে সংগ্রাম করে। প্রাচীন ও মধ্যযুগের পর বাংলাকে শক্ত হাতে শক্ত খুঁটিতে বাঁধতে প্রাণান্তকর চেষ্টা চালান মাইকেল, বঙ্কিম, মীর মোশাররফ হোসেন, কায়কোবাদ, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং কবি কাজী নজরুল ইসলাম।
তাদের প্রচেষ্টায় বাংলা দাঁড়ায় সম্মানজনক অবস্থানে। বিশেষ করে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নোবেল পুরস্কার অর্জন বাংলাকে বিশ্বসভায় আরো মর্যাদার আসনে আসীন করে। এরই মধ্যে ভাগ হলো ভারত। ১৯৪৭ সালে জন্ম হলো ভারত ও পাকিস্তান নামে দুটি রাষ্ট্রের। পাকিস্তান রাষ্ট্রের জন্মের প্রাক্কালে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা নিয়ে দেখা দেয় জটিলতা। পাকিস্তানের ৫৫ শতাংশ মানুষের মুখের ভাষা বাংলা হলেও পাকিস্তানী শাসক গোষ্ঠী প্রথম থেকেই এদেশের মানুষের উপর উর্দুকে চাপিয়ে দিতে চায়। কিন্তু, এ দেশের মানুষ পাকিস্তানী শাসকদের এ ষড়যন্ত্র মেনে নেয়নি, তারা গড়ে তুলে আন্দোলন এবং ভাষার দাবিতে গড়ে উঠা আন্দোলনের চূড়ান্ত পরিণতি লাভ করে ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি।
এরই মধ্যে ভাষা আন্দোলনে ৬৩ বছর পার হয়ে গেছে। বাংলাদেশ সরকারের দাপ্তরিক কাজ বাংলায় নিষ্পন্ন হয়। কিন্তু, উচ্চ আদালতে বাংলা ভাষা নেই। অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাংলার প্রবেশ নিষিদ্ধ। তাই, বাংলা ভাষায় আমাদের মেধা, মনন ও সৃজনশীলতার উৎকর্ষ সাধিত হচ্ছে না।
ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে আজ থেকে শুরু হবে অমর একুশে বইমেলা। বাংলা একাডেমী চত্বর ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বই মেলা বসবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে মেলার উদ্বোধন করেন।
এদিকে, সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেট মহান ভাষার মাস বরণে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও মহান ভাষা শহীদ দিবসকে সামনে রেখে আজ সোমবার নগরীতে ‘বর্ণমালার মিছিল’ করবে। সকাল ১০টায় সিলেট জেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে সমাবেত হয়ে বর্ণমালার মিছিলটি সিলেট কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে শেষ হবে। বর্ণমালার মিছিলের সূচনা করবেন ভাষা সৈনিক অধ্যাপক মো. আব্দুল আজিজ।

শেয়ার করুন