ফাইনালে উঠার লড়াইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ

u19 logo bdস্পোর্টস ডেস্ক : কোয়ার্টার ফাইনা খেলার পর বেশ ভালো বিরতিই পেয়েছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। টানা খেলার ধকল কাটিয়ে এখন বেশ ফুরফুরে মেজাজেই রয়েছে গোটা দল। সেমিফাইনালের জন্য তাই ভালো প্রস্তুতিও নিতে পেরেছে টাইগার জুনিয়ররা। এর মাঝেও সেমিকে ঘিরে বাংলাদেশ দলের চারপাশে তৈরি হয়েছে প্রত্যাশার চাপ।

যুব বিশ্বকাপে শুধু নয় আইসিসির কোনো টুর্নামেন্টেই প্রথমবার সেমিতে খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ম্যাচ দিয়ে মেহেদী হাসান মিরাজের দল তাই দেশের পক্ষে নতুন ইতিহাস গড়তে যাচ্ছে। টাইগার জুনিয়ররা অবশ্য চাপ না নিয়ে শুধু ম্যাচের দিকেই মনোযোগী হচ্ছেন। বাইরের প্রত্যশার চাপকে সামলানোর চেষ্টাও করছে মিরাজ বাহিনী। তবে শেষ চারের ম্যাচ বলে কিছুটা রোমাঞ্চ দলটার মাঝে ঠিকই কাজ করছে।

কোয়ার্টার ফাইনালের পর ৬ দিনের বিরতিতে ভালো প্রস্তুতি নিয়েছে বাংলাদেশ দল। বুধবার ম্যাচ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক মিরাজ বলেন, “আমরা ৬ দিনের একটি বিরতি পেয়েছি। এই বিরতিতে আমার ভালো প্রস্তুতি নিয়ে নিতে পেরেছি। সব মিলিয়ে আমরা প্রস্তুত আমাদের পরবর্তী ম্যাচের জন্য। বিশেষ করে আমাদের ওপেনিং ব্যাটসম্যানরা প্রস্তুত।” সেমিতে খেলতে পেরে গর্ববোধ করছে দলটা। মিরাজ বলেন, “আমি খুব গর্বিত, প্রথমবারের মতো আমরা সেমিফাইনাল খেলছি। তবে এটা আমাদের জন্য কোন চাপের না। আমরা সবাই ভালো খেলতে মুখিয়ে আছি। যদি আমরা ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি, অবশ্যই সফল হবো।”

শেষ চারে খেলার চাপ বা রোমাঞ্চ কোনটা বেশি? জানতে চাইলে বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, “এগুলোর কোনটাই আসলে বেশি না। কারন আসলে আমরা যদি এখানে হ্যাপি থাকি তাহলে এখানেই শেষ করতে হবে। আমরা কিন্তু হ্যাপি না। আমাদের লক্ষ্য একটি একটি করে ম্যাচ। টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই স্যার (বাবুল) একটা কথাই বলেছে আমরা প্রতিদিন একটা করে ম্যাচ খেলবো আর একটা করে জিতবো। এখন স্টেজটা আমাদের কাছে এমন যে, সেমিফাইনালে আসছি। কিন্তু সেমিফাইনালে আসছি এটা আমরা কেউ চিন্তাই করছি না। আমাদের মাথার ভেতর কাজ করছে না। আমার চিন্তা কালকে একটা ম্যাচ ওটা আমাদের জিততে হবে। তারপরও সামনে যা হবে হবে।”

দলের বাইরে থেকে চাপকেও কাছাকাছি ভিড়তে দিচ্ছে না বাংলাদেশের যুবারা। মিরাজ জানান, “যখন আমি ক্রিকেট খেলা শুরু করি তখন আসলে আমি আমার পরিবার, দর্শকদের কথাও চিন্তা করি না। বাইরের কোন চিন্তা মাথায় ঢুকে না। তখন একটা চিন্তা থাকে, বলটা আসছে কিভাবে ভালো খেলবো। কিভাবে রান করতে হবে। কিভাবে উইকেট নিতে হবে। এটাই চিন্তা করি।”

বাংলাদেশ কোচ মিজানুর রহমান বাবুলও জানালেন, তার শীষ্যরাও বৃহস্পতিবারের ম্যাচে চাপ নিচ্ছে না। বরং একটা সাধারন ম্যাচ হিসেবেই দেখছে। তিনি বলেন, “আমরা কালকের ম্যাচকে শুধুমাত্র একটা ম্যাচ হিসেবেই চিন্তা করছি। সেমিফাইনাল হিসেবে ভাবছি না। সেমিফাইনাল বলে জিততেই হবে; এভাবে ভেবে কোনো চাপ নিতে চাচ্ছি না। আমরা এটিকে নিয়মিত একটি ম্যাচ হিসেবেই খেলতে চাই। চেষ্টা থাকবে নিজেদের পরিকল্পনা ঠিকঠাক প্রয়োগ করার।”

শেয়ার করুন