দুর্নীতির মাধ্যমে নাইকো চুক্তি হয়েছিল ॥ জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী

Sunamganj Picture(TYangra Tila).05.02.2016সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ  বিদ্যুত, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু বলেছেন, নাইকো দুর্নীতি মামলায় জড়িতরা কানাডিয়ান আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন। জবানবন্দীতে তারা দুর্নীতির মাধ্যমে চুক্তি করেছিলেন জানিয়ে ছিলেন। শুক্রবার দু’দফা ব্লো-আউটে ক্ষতিগ্রস্ত টেংরাটিলা গ্যাসক্ষেত্র পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ সব কথা বলেন।
তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার আমলে তাঁর সরকারের জ্বালানী প্রতিমন্ত্রী মোশারফ হোসেন নাইকো দুর্নীতি মামলায় দোষী সাব্যস্ত হয়ে আদালতে জরিমানাও দিয়েছেন ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন দোয়ারাবাজার উপজেলা চেয়ারম্যান ইদ্রিছ আলী বীর প্রতীক, সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার, দোয়ারাবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল  মোমেনসহ বিদেশী প্রতিনিধিদলের সদস্যরা।
পরিদর্শন শেষে  বীর প্রতীক আব্দুল হালিমের বাড়িতে স্থানীয়দের সঙ্গে মতবিমিনয় করেন প্রতিমন্ত্রী। মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন, দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইদ্রিছ আলী বীরপ্রতীক, আব্দুল হালিম বীর প্রতীক, আব্দুল মজিদ বীর প্রতীক, ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান মাস্টার, ইউপি চেয়ারম্যান আমিরুল হক, আব্দুল খালেক,মাস্টার ফরিদ উদ্দিন,  প্রভাষক শের মাহমুদ ভূঁইয়া, ইউপি সদস্যা শাহেদা আক্তার প্রমুখ।
গত বুধবার  থেকে  টেংরাটিলা গ্যাস ক্ষেত্রে বিভিন্ন নমুনা  সংগ্রহ শুরু করে  পেট্রোবাংলা ও বাপেক্সের কাউন্সেলিং প্রতিষ্ঠানের ১১ সদস্যের প্রতিনিধি দল।  টেংরাটিলা গ্যাসফিল্ড বিস্ফোরণের পর আন্তর্জাতিক সালিশি আদালতে নাইকোর দায়ের করা মামলায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে তথ্য উপাত্ত সংগ্রহে এ প্রতিনিধি দল টেংরাটিলা পরিদর্শন শুরু করে। বিদেশী প্রতিনিধি দল টেংরাটিলা গ্যাসফিল্ডের আশপাশের এলাকা পরিদর্শনের পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্তদের সাথে কথা বলে বর্তমান অবস্থা নিরূপণ করে রিপোর্ট দেবে।
উল্লেখ্য, টেংরাটিলা গ্যাসফিল্ডে ২০০৫ সালের ৭ জানুয়ারি ও ২৪ জুন দুই দফা  ব্লো-আউটের পর নাইকো রিসোর্সেস (বাংলাদেশ) লি. আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালে মামলা করে। যা বর্তমানে চলমান। ট্রাইব্যুনালের শিডিউল অনুযায়ী আগামী ২৫ মার্চের মধ্যে বাপেক্স ও  পেট্রো বাংলাকে ক্ষয়ক্ষতির বিবরণ-সংবলিত কাগজ দাখিল করতে হবে। মামলা পরিচালনার জন্য আন্তর্জাতিক কাউন্সিল প্রতিষ্ঠান আমেরিকার ফোলি হগ এলএলপিকে নিয়োগ  দেয় বাপেক্স ও  পেট্টোবাংলা। আর এর অংশ হিসেবে ১১ সদস্যের প্রতিনিধিদল  টেংরাটিলায় তথ্য সংগ্রহে অবস্থান করছে।

শেয়ার করুন