শাবিতে শিক্ষকের গাড়ি চাপায় চাচা- ভাতিজার মৃত্যু ॥ আহত ৩

০০০০০০০০০০শাবি প্রতিনিধিঃশাহজালাল বিজ্ঞান ও প্র্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ড্রাইভিং শেখার সময় শিক্ষকের গাড়ি চাপায় চাচা-ভাতিজা নিহত ও আরো ৩ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ক্যাম্পাসের প্রবেশপথে গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে মর্মান্তিক এ দুঘর্টনা ঘটে।
নিহতরা হচ্ছেন-ছাতক ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক আতাউর রহমান (৪৫) ও তার চাচা গিয়াস উদ্দিন (৬০)। তাদের গ্রামের বাড়ি সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুর উপজেলার পূর্ব কাতিয়া গ্রামে। বর্তমানে শহরতলীর নিকুঞ্জ আবাসিক এলাকায় বসবাস করেন তারা। এ ঘটনায় নিহত আতাউর রহমানের মেয়ে রাহিবা রহমান (সেলিনা), ও শাহজালাল ব্শ্বিবিদ্যালয়ের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. আরিফুল হক এবং তার গাড়ি চালক আবুল কালাম আহত হয়েছেন। তাদেরকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শাবি ক্যাম্পাসের প্রবেশ পথে আরিফুল হক গাড়ি চালানো শেখার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তিনটি পথচারী ধাক্কা দিয়ে একটি গাছের সাথে হোঁচট খায়। দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই নিহত হন জগন্নাথপুরের কাতিয়া গ্রামের মৃত আবদুল করিমের ছেলে গিয়াস উদ্দিন (৬০)। গুরুতর আহত অবস্থায় ছাতক ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক মো. আতাউর রহমানকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে নেয়া হলে তারও মৃত্যু ঘটে। এ দুর্ঘটনায় প্রভাষক আতাউর রহমানের মেয়ে রাহিবা রহমান (সেলিনা), ড. আরিফুল হক এবং প্রাইভেটকার চালক কালাম আহত হন।
জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতার হোসেন জানান, শাবির আইপিই বিভাগের শিক্ষক আরিফ আহমদ সম্প্রতি একটি প্রাইভেট কার (নম্বর-ঢাকা মেট্রো গ-২০-৪০০৯) কেনেন। এ কার নিয়ে শনিবার সকালে ক্যাম্পাসে প্রাইভেট কার চালানো শিখছিলেন। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ক্যাম্পাসে গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুই পথচারী ও এক ছাত্রীকে ধাক্কা দেয়। এ কারণে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।
ওসি জানান,ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ প্রাইভেট কারটি জব্দ করা হয়েছে। ওসমানী মেডিকেল কলেজে নিহতদের ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে বলে জানান ওসি।

শেয়ার করুন