শপথ নিতে এসে যা বলে গেলেন জিকে গউছ

112929_b3সিলেটের সকাল : ‘কিবরিয়া হত্যার সঙ্গে সম্পৃক্ততা থাকলে আমার দুই চোখ অন্ধ হয়ে যাবে। আমার সন্তানদের ওপর এর প্রভাব পড়বে।’ এ মন্তব্য করেছেন হবিগঞ্জের নির্বাচিত পৌর মেয়র জি কে গউছ। ফের পৌর নির্বাচনে জয়লাভের পর গতকাল প্যারোলে মুক্তি পেয়ে হবিগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচিত মহিলা ও পুরুষ কাউন্সিলরদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় তিনি অনেকটা আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন। এরপরও সহকর্মীদের শুভেচ্ছা জানাতে তিনি ভুল করেননি। বললেন, আপনারা নির্বাচিত হয়েছেন জনগণের উন্নয়ন ঘটাতে। সুতরাং সবক্ষেত্রে জণগণের উন্নয়নের কথা মাথায় রেখে কাজ করবেন। প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক রেখে জনগণের দাবি আদায়ে সচেষ্ট থাকবেন। গতকাল দুপুরে সিলেটের জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সিলেট বিভাগের নির্বাচিত ১৬ মেয়র ও কাউন্সিলরদের শপথ পড়ানো হয়। এ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে বেলা ১১টার দিকে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে প্যারোলে মুক্তি দেয়া হয় নবনির্বাচিত মেয়র জিকে গউছকে। সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া হত্যা মামলার আসামি হয়ে তিনি দীর্ঘদিন ধরে কারাবরণ করছেন। জেল থেকে গত ৩০শে ডিসেম্বর নির্বাচনে অংশ নিয়ে ৩য়বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হন। সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের সুপার ছগির আলী বলেন, শপথ নিতে কারাবন্দি মেয়র জিকে গউছকে সিলেটের ভারপ্রাপ্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শহিদুল ইসলাম প্যারোলে মুক্তি দিয়েছেন। শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে যতটুকু সময় প্রয়োজন, ততটুকু সময়ের জন্য তাকে মুক্তি দেয়া হয়। তিনি প্রায় ১৩ মাস ধরে কারাবন্দি রয়েছেন। বর্তমানে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন। প্যারোলে মুক্তি দিয়ে জিকে গউছকে মাইক্রোবাসযোগে নিয়ে আসা হয় জেলা পরিষদ মিলনায়তনে। সেখানে এসে অন্যান্য সকল মেয়রের সঙ্গে শপথ পড়েন। শপথগ্রহণ শেষে জেলা পরিষদ মিলনায়নের একটি কক্ষে তিনি তার পরিষদের কাউন্সিলরদের সঙ্গে বৈঠক করেন। এ সময় কয়েকজন কাউন্সিলর জিকে গউছকে শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য দেন। জিকে গউছ এ সময় বলেন, ‘সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া হত্যা মামলায় আমার বিন্দু পরিমাণ সম্পৃক্ততা নেই। কিবরিয়া হত্যার সঙ্গে সম্পৃক্ততা থাকলে আমার দুই চোখ অন্ধ হয়ে যাবে। আমার সন্তানদের ওপর এর প্রভাব পড়বে।’ তিনি কখনো হত্যার রাজনীতি করেন না বলেও জানান। বেলা একটার দিকে জিকে গউছকে ফের সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

শেয়ার করুন