ফুলতলী ভক্তদের পদচারণায় মুখর বালাইর হাওর

3333নোমান বিন আরমান, জকিগঞ্জে থেকে ফিরে : সিলেটের সবগুলো পথ একমুখী ছিল আজ শুক্রবার। সবার যাত্রা ছিল সীমান্ত উপজেলা জকিগঞ্জের দিকে। গন্তব্য বালাইর হাওর। সেখানে উপমহাদেশের প্রখ্যাত আলেম হযরত আল্লামা আব্দুল লতিফ চৌধুরীর মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে ইসালে সাওয়াব অনুষ্ঠান। লাখো মানুষের ঢল নেমেছিল জকিগঞ্জে বালাইরহাওরে। শুধু সিলেটেরই নয়, দেশের দুর দুরান্ত থেকে দলে দলে লোকজন যোগ দেন মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত মাহফিলে।
শুক্রকার সকাল থেকে সিলেট নগরী থেকে গাড়ি বহর নিয়ে লোকজন রওয়ানা দেন ফুলতলীর উদ্দেশ্য। দুপুর গড়াতেই লোকারন্য হয়ে উঠে ফুলতলীর সাহেববাড়ি। আর বালাইরহাওরে বিশাল সামিয়ানার ভেতরে জুম্মার নামাজে অংশ নেন অর্ধলাখ মুসল্লী। বিকেল হতেই তিল ধারনের ঠাঁই ছিল না ফুলতলীতে। সিলেটের সব মানুষের ¯্রােত যেনো মিশে যায় ফুলতলীতে। বাদ জুম্মা ফুলতলীর বালাইহাওরের মাহফিলে বক্তব্য রাখেন আলামা ফুলতলী (র.)-এর সুযোগ্য উত্তরসূরি হযরত আলামা ইমাদ উদ্দিন চৌধুরী ফুলতলী। শুরু হয় অনুষ্ঠানের মূল পর্ব। খতমে খাজেগান ও দুআর পর মুরিদীন-মুহিব্বীনের উদ্দেশ্যে পেশ করেন অত্যন্ত হৃদয়গ্রাহী বয়ান। সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, আল্লাহ আমাদের আমাদের চার ইমাম রয়েছেন। কিন্তু খারিজিরা নানা বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। এই কঠিন পরিস্থিতিতে যুবকরা যাতে দীনের কাজ করে, সহজ-সরল পথে চলে। তিনি বলেন, নবী, সাহাবীদের পর পৃথিবীতে যুগে যুগে ওলীরা ইসলামের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তাই ওলীদের প্রতি ভালবাসা রাখা মুমিনদের কর্তব্য।
সকাল সাড়ে ১০টায় এতীমখানার হাজারো এতীমকে নিয়ে হযরত আল্লামা ফুলতলী ছাহেব কিবলাহ (র.)-এর মাজার জিয়ারতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় মাহফিলের কার্যক্রম। এরপর অুষ্ঠিত হয় খতমে কুরআন ও দালাইলুল খায়রাত শরীফের খতম। বাংলাদেশ আন্জুমানে আল ইসলাহর সভাপতি মাওলানা মুহাম্মদ হুছামুদ্দীন চৌধুরী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাওলানা আহমদ হাসান চৌধুরী’র যৌথ পরিচালনায় মাহফিলে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ইছামতি কামিল মাদরাসার সাবেক প্রিন্সিপাল শায়খুল হাদীস আল্লামা হবিবুর রহমান, সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসাইন, উজানডিহির পীর ছাহেব মাওলানা সায়্যিদ মোস্তাক আহমদ আল মাদানী, ফুলতলী কামিল মাদরাসার সাবেক প্রিন্সিপাল আল্লামা নজমুদ্দীন চৌধুরী, দৈনিক ইনকিলাবের নির্বাহী সম্পাদক মাওলানা কবি রূহুল আমীন খান, মাওলানা শিহাব উদ্দিন চৌধুরী ফুলতলী, মুফতী মাওলানা গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী ফুলতলী, সোবহানীঘাট কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা কমরুদ্দীন চৌধুরী, সাবেক এমপি আলহাজ শফিকুর রহমান চৌধুরী, বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহর মহাসচিব মাওলানা এ.কে.এম মনোওর আলী, ঢাকা নেছারিয়া কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা কাফীলুদ্দীন ছালেহী, মুফতী মাওলানা আবূ নছর জিহাদী, জালালপুর জালালিয়া কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা জ.উ.ম আব্দুল মুনঈম, ইকড়ছই সিনিয়র মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা ছমির উদ্দীন, সৎপুর কামিল মাদরাসার মুহাদ্দিছ মাওলানা ছালিক আহমদ, বুরাইয়া কামিল মাদ্রাসার ভাইস প্রিন্সিপাল মাওলানা সিরাজুল ইসলাম ফারুকী, ঢাকা মহাখালী কামিল মাদরাসার মুহাদ্দিছ মাওলানা মাহবুবুর রহমান, জকিগন্জ সিনিয়র মাদরাসার সহকারী অধ্যাপক মাওলানা মোশাহিদ আহমদ কামালী, দারুন্নাজাত সিদ্দিকিয়া কামিল মাদরাসার মুহাদ্দিছ মাওলানা বদরুজ্জামান রিয়াদ, তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় সভাপতি ফখরুল ইসলাম ও ঢাকা জেলা লতিফিয়া কারী সোসাইটির সভাপতি মাওলানা আবু সাদেক মুহাঃ ইকবাল খন্দকার।
মাহফিলে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভারতের উজানডিহির পীর ছাহেব মাওলানা সায়্যিদ জুনাইদ আহমদ আল মাদানী, আমরোটের পীর ছাহেব হযরত মাওলানা আব্দুল কুদ্দুছ, মাওলানা আব্দুশ শাকুর চৌধুরী ফুলতলী, জালালিয়া কামিল মাদরাসার সাবেক প্রিন্সিপাল মাওলানা শুয়াইবুর রহমান, নর্থইস্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের চেয়ারম্যান এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরী, ইয়াকুবিয়া হিফযুল কুরআন বোর্ডের জেনারেল সেক্রেটারী হাফিয মাওলানা ফখরুদ্দীন চৌধুরী, সুপ্রিম কোর্টের সহকারী এটর্নি জেনারেল আব্দুর রকিব মন্টু, সৎপুর কামিল মাদরাসার সাবেক প্রিন্সিপাল মাওলানা শফিকুর রহমান, মৌলভীবাজার টাউন কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আব্দুল কাইয়ূম সিদ্দিকী, ইছামতি কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা মাশুক আহমদ, বাদেদেওরাইল ফুলতলী কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আব্দুর রহীম, রাখালগন্জ সিনিয়র মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা হবিবুর রহমান, জকিগঞ্জ সিনিয়র মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা নূরুল ইসলাম, বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহর সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা ছরওয়ারে জাহান, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিন্সিপাল মাওলানা মঈনুল ইসলাম পারভেজ, ঢাকা মহাখালী কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল ড. মাওলানা নজরুল ইসলাম খান আল মারূফ, সৎপুর কামিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপাল মাওলানা আবূ জাফর মুহাম্মদ নুমান, মাথিউউরা সিনিয়র মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আবদুল আলিম, ভারতের বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ আজিজুর রহমান তালুকদার, মাওলানা মাহবূবুর রহমান, স্পেন আল ইসলাহর সভাপতি মাওলানা আসাদুজ্জামান রাজ্জাক, ইউকে আল ইসলাহ নেতা আলহাজ্ব ইসমাইল মিয়া, সিলেট জেলা ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের সভাপতি আলহাজ্ব শেখ মকন মিয়া, মাওলানা কাজী আলাউদ্দিন আহমদ প্রমুখ।
অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার টাউন কামিল মাদরাসার ভাইস প্রিন্সিপাল মাওলানা শামসুল ইসলাম, বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহর কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক মাওলানা কুতবুল আলম, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মাওলানা নজমুল হুদা খান, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মাওলানা মাহমুদ হাসান চৌধুরী, স্কুল অব এক্সেলেন্স-এর ভাইস প্রিন্সিপাল মাওলানা গুফরান আহমদ চৌধুরী, মাওলানা মুজিবুর রহমান ভাদেশ্বরী, তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা হাসান চৌধুরী গিলমান, সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি আলমগীর হোসেন, মাওলানা আজির উদ্দিন পাশা, হাফিয নজীর আহমদ হেলাল, মাওলানা বেলাল আহমদ, ভাদেশ্বর আলিয়া মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা শুয়াইবুর রহমান, এলাহাবাদ আলিয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আবু তাহির হুসাইন, মাদারবাজার হাফিজিয়া আলিয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ ড. সৈয়দ শহীদ আহমদ বোগদাদী, ফেঞ্চুগন্্জ মুহাম্মদিয়া সিনিয়র মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা ফরিদ উদ্দীন আতহার, বিশ্বনাথ আলিয়া মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা নুমান আহমদ, মাওলানা আব্দুস সোবহান জিহাদী, মাওলানা আব্দুল বারী জিহাদী, আলহাজ্ব তোরণ মিয়া, ইয়াকুবিয়া হিফযুল কুরআন বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ হাফিয আশিকুর রহমান, মৌলভীবাজার সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাফিয আলাউর রহমান টিপু, কুলাউড়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা ফজলুল হক খান শাহেদ, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা ইমাদ উদ্দিন নাসিরী, আল ইসলাহ নেতা মাওলানা আবু তাহির খালিদ, মাওলানা ফরিদ আহমদ হবিগঞ্জী, আলহাজ শাহজাহান মিয়া, মাওলানা আলী আসগর খান, মাওলানা হেলালুদ্দীন সিরাজী, মাওলানা আনোয়ার হোসাইন, ড. মুর্শেদ আলম ছালেহী, মাওলানা আজিজুর রহমান প্রমুখ।

শেয়ার করুন