চেক চুরির মামলায় দুই জনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন

Churiসিলেটের জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পঞ্চম আদালতের বিচারক কুদ্দুত-ই খোদা একটি চেক চুরির মামলায় কামিল আহমদ ও খলিুলুর রহমান নামের দুই আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেছেন। উভয় আসামী এই চেক চুরির মামলা থেকে অব্যাহতির আবেদন করলে গত বুধবার উভয় পরে শুনানি শেষে আদালত আসামীদের আবেদন না মঞ্জুর করে চার্জ গঠন করেন।
মামলার বিবরণে জানা যায় জকিগঞ্জ উপজেলার কসকনক পুর গ্রামের আব্দুল গফ্ফার তাপাদারের পুত্র কামিল আহমদ বিশ্বনাথ উপজেলার খাজাঞ্চী ইউনিয়নের রাউতরগাও গ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী রহমান আলীর স্ত্রী শাহানারা বেগমের বাড়ীতে লজিং থেকে লেখা পড়া করত। এক পর্যায়ে বাউতর গ্রামের ইকবাল আহমদ ও তার বোনকে প্রাইভেট পড়াতে থাকার সুযোগে উক্ত পরিবারের সাথে ঘনিষ্ট হয়ে যায়। এখন মামলার বাদীর বোন রেশমা বেগমকে (ছদ্মনাম) বিবাহ করার প্রস্তাব দিলে তা প্রত্যাখান হয়। এতে ুদ্ধ হয়ে আসামী কামিল আহমদ ২০১৩ সালের ২০ আগষ্টে বাদীর বোনকে ঘরে একা পেয়ে জোর পূর্বক ধর্ষনের চেষ্টা করে এবং নগ্ন ছবি তুলে। এসময় পূর্বের দেখা ও জানা মতে আলমীরায় থাকা আটটি চেক চুরি করে নিয়ে যায়। ইকবাল আহমদ কামিল আহমদকে আসামী করে পূর্ণগ্রাফী মামলা করলে পুলিশ আসামীকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করে। আসামী কামিল জেল হাজতে থাকাবস্থায় আসামী খলিলুর রহমান ইসলামী ব্যাংক তালতলা শাখায় গিয়ে ২টি চেক ডিজনার করেন। তখন পুরো বিষয় জানতে চোরাইকৃত চেকটি নিয়ে ব্যাংকে ডিজনার করে বলে স্বীকার করে। আসামী খলিলুর পিতার নাম রইছ উদ্দিন ওরফে কুটি মিয়া সে কুদরত উল্যাহ মার্কেটের সিব্বিরিয়া লাইব্রেরীর মালিক।

শেয়ার করুন