নতুন চ্যাম্পিয়ন পাচ্ছে বিপিএল

BPLT20স্পোর্টস রিপোর্টার : প্রায় মাসব্যাপী ক্রিকেট মিলনেমেলা সমাপ্তির দ্বারপ্রান্তে। শুধু একটা হিসেবই এখন বাকি; কে হবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) তৃতীয় আসরের চ্যাম্পিয়ন। সেই হিসেব মিলাতে এখন একটি মাত্র ম্যাচ বাকি। মঙ্গলবার সেই ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের মুখোমুখি হবে বরিশাল বুলস। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শুরু হবে ম্যাচটি। এই আসরে যে দলই চ্যাম্পিয়ন হোক; তারাই প্রথমবারের মতো বিপিএলে শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পরবে।

দীর্ঘ সিঁড়ি বেয়ে দুটি দলই চূড়ায় ওঠে এসেছে। প্রথম রাউন্ডে তিন পর্বে ১০টি করে ম্যাচ খেলেছে অংশ নেওয়া ৬টি দল। এই রাউন্ডে সেরা ৪ দল ওঠেছিল শেষ চারে। শেষ চারের লড়াই শেষে ফাইনালে ওঠেছে ২টি দল।

ফাইনালের আগে দুদলেরই আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে। এর মধ্যে অনেকটা চমকে দিয়েই কুমিল্লা দল দিন দিন উন্নতি করছে। শেষ চারে প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে রংপুর রাইডার্সকে হারিয়ে সরাসরি ফাইনালের টিকিট পেয়েছে প্রথমবার বিপিএল খেলতে আসা দলটি। তাই ফাইনালে প্রস্তুতির জন্য বরিশালের চেয়ে একদিন সময় বেশি পেয়েছে মাশরাফিরা।

কুমিল্লার প্রথম হলেও ব্যক্তি মাশরাফির জন্য এটি হ্যাটট্রিক শিরোপা জয়ের সুযোগ। আগের দুটি আসরেই নড়াইল এক্সপ্রেসের নেতৃত্বেই বিপিএল জিতেছে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স। কুমিল্লা তারকা নির্ভর দল না হলেও তরুণরাই দুর্দান্ত খেলছেন তাদের পক্ষে।

আবু হায়দার রনি ইতিমধ্যে ২১ উইকেট নিয়ে এক আসরে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী হয়েছেন। ফাইনালেও তার দিকে বিশেষ নজর থাকবে। তবে ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্দ্রে রাসেলকে পাচ্ছেন না মাশরাফি। তাই ব্যাটিংয়ে ইমরুল কায়েস, লিটন দাস, এসার জাইদি ও আহমেদ শেহজাদের মতো ব্যাটসম্যানদের উপরই নির্ভর করতে হচ্ছে কুমিল্লাকে।

মাশরাফি অবশ্য ব্যক্তি বিশেষ নয়, সম্মিলিত পারফরম্যান্সের উপরই ফাইনালে নির্ভর করতে চাইছেন। ফাইনাল ম্যাচ নিয়ে তিনি বলেছেন, ‘পুরো টুর্নামেন্টে আমরা একটি দল হিসেবে খেলছি; মাঠে এবং মাঠের বাইরে। আমরা সবাই পেশাদারিত্ব বজায় রাখছি। তাতেই এবার সফল হয়েছি। প্রথম দিকে আমরা অতোটা ভালো খেলতে পারেনি। তবে এরপর থেকে আমরা দুর্দান্ত এক দলে পরিণত হয়েছি। তাই এতাদূর আশার পর নিশ্চয়ই খালি হাতে ফিরতে চাইবো না। আগের ম্যাচগুলোতে আমরা যেভাবে খেলেছি ওই ধারা অব্যাহত রাখতে পারলে অবশ্যই ফাইনালেও ভালো কিছু করা সম্ভব।’

বরিশালও রয়েছে দুর্দান্ত ফর্মে শেষ চারে তাদের দুই দফায় পরীক্ষা দিতে হয়েছে। ঢাকা ডায়নামাইটসকে হারিয়ে ওঠেছে কোয়ালিফায়ারে। আর সেই কোয়ালিফায়ারে হারিয়েছে রংপুর রাইডার্সকে। বরিশালের বড় বিয়োগের মধ্যে শুধু ক্রিস গেইল চলে গেছেন বরিশালের। তবে গেইলহীন বরিশালও রংপুরের বিপক্ষে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছে। মাত্র ৪৯ বলে সাব্বির ৭৯ রান করে জ্বলে ওঠেছেন। তাই গেইল না থাকলেও ফাইনাল ম্যাচ নিয়ে আত্মবিশ্বাসী বরিশাল বুলস।

ফাইনাল ম্যাচ নিয়ে কোয়ালিফায়ারে ৪৪ রান করা ব্যাটসম্যান শাহরিয়ার নাফিস বেজায় আশাবাদী। তিনি বলেছেন, ‘গেইল দলে নেই, তাতে কোনো সমস্যা হবে না। ওকে ছাড়াও আমরা জিতেছি। যদি সবাই মিলে যদি পারফর্ম করি, তবে কালকেও (মঙ্গলবার) আমরা জিততে পারবো। আমরা লিগ পর্ব এবং কোয়ালিফায়ারে ভালো খেলে ফাইনালে এসেছি। সেই খেলাটাই ধরে রাখতে চাই। ফাইনাল ভেবে নয়, আমরা নিজেদের স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে চাই। তাহলেই আশা করি আমাদের পক্ষে ফল আসবে।’

দুই দল প্রস্তুত। বাকি শুধু লড়াইয়ের। সেই লড়াইও এখন সময়ের ব্যাপার। তবে দেখার অপেক্ষা মঙ্গলবার চূড়ান্ত লড়াইয়ে তৃতীয় আসরে বিপিএল শিরোপা কার ঘরে ওঠে! যে দলই চ্যাম্পিয়ন হোক এবার তাদের জন্যই হবে বিপিএলে এটি প্রথম শিরোপা। তারাই বিপিএল জয়ের ইতিহাসে নাম লেখাবেন নতুন করে। সেই সঙ্গে আলোর ঝরনাধারা আর সুরের মুর্চ্ছনায় সাজানো থাকছে তৃতীয় আসরের সমাপনী অনুষ্ঠানও।

শেয়ার করুন