ক্রেডিট কার্ডে কেনাকাটায় সাবধান!

loving_heart_1333202181_5-creditcardsক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে অনলাইনে কেনাকাটা করতে গিয়ে অনেক সময় বিপদে পড়তে হয়। কেনাকাটার বিভিন্ন সাইট হ্যাকিং, ক্রেডিট কার্ডের নম্বর হ্যাক করে ব্যবহারকারীর অজান্তে টাকা তোলাসহ নানা অপরাধ বাড়ছে। তাই সাবধান থাকাই ভালো।

যারা ক্রেডিট কার্ডে অনলাইনে কেনাকাটা করেন, তাঁদের কয়েকটি বিষয় মনে রাখা জরুরি। এনডিটিভিতে এ রকম কয়েকটি পরামর্শ তুলে ধরা হয়েছে। এগুলো হলো:

১) ক্রেডিট কার্ড নেওয়ার সময় প্রথমেই মাথায় রাখতে হবে, এটি যেন ভালো ব্যাংকের হয়। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অধীনে পরিচালিত ব্যাংকগুলোর ক্রেডিট কার্ড বেশি নির্ভরযোগ্য। পছন্দ করার সময় ক্রেডিট কার্ডে কেনাকাটার পরিমাণ, পুরস্কার, সুদ প্রভৃতি বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে। ক্রেডিট কার্ড সরবরাহকারী ব্যাংকটি গ্রাহকদের নিরাপত্তা নিয়ে সচেতন কি না, এটিও বিবেচ্য।

২) ভুলেও কোনো ওয়েবসাইটে ক্রেডিট কার্ডের নম্বর সংরক্ষণ করবেন না। এতে ঝুঁকি বেড়ে যায়। কারণ ওই ওয়েবসাইটে রাখা ক্রেডিট কার্ডের পাসওয়ার্ড বা নম্বর হ্যাক হতে পারে।

৩) বিভিন্ন অনলাইনে কেনাকাটা করা যায়। ভেবেচিন্তে অনলাইনে কেনাকাটার সিদ্ধান্ত নিতে হবে। কেবলমাত্র ছাড়, পোশাকের নকশা বা দ্রুত সরবরাহ করার ব্যবস্থা দেখে আকৃষ্ট হওয়া যাবে না। ভাবতে হবে, কেনাকাটার অনলাইনটি নিরাপদ কি না। এ ক্ষেত্রে ওয়েবসাইটের ইউআরএল বা ঠিকানা যাচাই করে নিতে হবে। দেখতে হবে, এটির শুরু এইচটিটিপি দিয়ে কি না।

৪) কোনো প্রতিষ্ঠান কেনাকাটা করার জন্য বিশেষ লিংক পাঠালে এতে প্রভাবিত না হওয়াই ভালো। কারণ এসব প্রতিষ্ঠান বা অনলাইন প্রায়ই জাল হয়ে থাকে। সুপ্রতিষ্ঠিত কোনো ওয়েবসাইটের নাম, নকশা নিয়ে এরা নকল ওয়েবসাইট বানায়। তাই কেনাকাটা করতে অনলাইনে ঢোকার আগে নিজেই ওয়েবসাইটের নাম লেখা ভালো। এতে ঝুঁকি এড়ানো যায়।

৫) জনবহুল জায়গা, যেমন সাইবার ক্যাফেতে বা ওয়াইফাই আছে—এমন এলাকায় অনলাইনে কেনাকাটা না করাই ভালো। কারণ আপনার পরে কম্পিউটারটি কে ব্যবহার করবে, এর কোনো নিশ্চয়তা নেই। এসব জায়গায় ক্রেডিট কার্ডের নম্বরটি হ্যাক হওয়ার ঝুঁকিও বেশি থাকে।

৬) হ্যাকিং এড়াতে মোবাইল, ল্যাপটপ বা কমপিউটারে অনলাইনে কেনাকাটার সময় বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করা জরুরি।

৭) অনলাইনে কেনাকাটার জন্য কখনই পিন নম্বর দেওয়া যাবে না। কারণ অনলাইন কেনাকাটায় সিভিভি নম্বর এবং লেনদেন বিষয়ক পাসওয়ার্ড লাগে। এটি ফোনেই পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

৮) যেসব সাইট পিন নম্বর চায়, তাদের ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।

৯) এমন একটি সতর্কতামূলক ব্যবস্থা রাখতে হবে, যাতে কেনাকাটার পর মুঠোফোনে বার্তা চলে আসে যে কত খরচ হলো।

শেয়ার করুন