ঈদে মিলাদুন্নবীকে (সা.) স্বাগত জানিয়ে তালামিয়ের র‌্যালি

02সিলেটের সকাল রিপোর্ট : মহানবী হযরত মুহাম্মাদ (সা.) এর জন্মদিন-ঈদে মিলাদুন্নবীকে স্বাগত জানিয়ে সিলেট নগরীতে র‌্যালি করেছে আঞ্জুমানে তালামিয়ে ইসলামিয়া। এতে নবীপ্রেমী হাজার হাজার মানুষ অংশ নেন। এসময় র‌্যালিতে রাসূল সা. এর শানে বিভিন্ন নাত ও কবিতা, সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়।

বাংলাদেশ আনজুমানে তালামীযে ইসলামিয়ার ঈদে মীলাদুন্নবী (সা.) র‌্যালী বাস্তবায়ন কমিটি সিলেট-এর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এ র‌্যালী দুপুরে সোবহানীঘাটস্থ হযরত শাহজালাল দারুচ্ছুন্নাহ ইয়াকুবিয়া কামিল মাদরাসা প্রাঙ্গন থেকে শুরু হয়ে সোবহানীঘাট, বন্দর বাজার, চৌহাট্টা, রিকাবীবাজার, বন্দরবাজার হয়ে আবার শাহজালাল দারুচ্ছুন্নাহ ইয়াকুবিয়া কামিল মাদরাসা প্রাঙ্গনে এসে শেষ হয়। র‌্যালীতে নেতৃত্ব দেন আল্লামা মুফতী গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, অধ্যক্ষ মাওলানা কমরুদ্দীন চৌধুরী, সাবেক এমপি শফিকুর রহমান চৌধুরী, বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির সভাপতি এডভোকেট মাওলানা আব্দুর রকিব, আনজুমানে আল ইসলাহর মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা একেএম মনোওর আলী, যুগ্ম মহাসচিব সুপ্রিম কোর্ট জামে মসজিদের খতীব মাওলানা আহমদ হাসান চৌধুরী শাহান, তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় সভাপতি ফখরুল ইসলাম, আনজুমানে আল ইসলাহর কেন্দ্রীয় শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মাওলানা নজমুল হুদা খান, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মাওলানা মাহমুদ হাসান চৌধুরী, তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা হাসান চৌধুরী গিলমান ও সিলেট জেলা ব্যবসায়ী ঐক্যকল্যাণ পরিষদের সভাপতি আলহাজ্ব মখন মিয়া।

র‌্যালীতে অংশগ্রহণের জন্য সকাল থেকেই সিলেটের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে হযরত আল্লামা ফুলতলী ছাহেব কিবলাহ (র.)’র মুরীদীন, মুহিব্বীন, আনজুমানে আল ইসলাহ, তালামীযে ইসলামিয়া, লতিফিয়া কারী সোসাইটি, আনজুমানে মাদারিছে আরাবিয়া ও জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের নেতা-কর্মী ও সর্বস্তরের আশিকে রাসূল মুসলিম জনতা সোবহানীঘাটস্থ হাজী নওয়াব আলী জামে মসজিদে সমবেত হতে থাকেন।

এ সময় র‌্যালীপূর্ব আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, হযরত মুহাম্মদ (সা.) বিশ্ব মানবতার মুক্তির দিশারী হিসেবে দুনিয়ার বুকে আবির্ভূত হয়েছিলেন। তিনি সারা সৃষ্টির জন্য আল্লাহর এক মহান নেয়ামত। তিনি পাপ-পঙ্কিলতায় ঘেরা, অজ্ঞতার অন্ধকারে নিমজ্জিত বিশ্বের মধ্যে অভূতপূর্ব পরিবর্তন সাধন করেছিলেন। গুমরাহীর ধ্বংসস্তুপের উপর সত্য ও ন্যায়ের সমাজ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। পাপাচারে লিপ্ত বর্বর একটি জাতিকে পবিত্র আল কুরআনের আলোকে পরিচালনা করে সোনার মানুষে পরিণত করেছিলেন। তাঁর মহৎ জীবন ও সুমহান আদর্শ চিরন্তন ও চিরস্থায়ী। বক্তারা ব্যক্তি ও সমাজ জীবনের সকল ক্ষেত্রে রাসূলে পাক (সা.)-এর সেই সুমহান আদর্শ প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ও র‌্যালী বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক মুহিবুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব হুমায়ূনুর রহমান লেখনের পরিচালনায় র‌্যালী পূর্ব সমাবেশে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আল্লামা মুফতী গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির সভাপতি এডভোকেট মাওলানা আব্দুর রকিব, আনজুমানে আল ইসলাহর মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা একেএম মনোওর আলী, যুগ্ম মহাসচিব সুপ্রিম কোর্ট জামে মসজিদের খতীব মাওলানা আহমদ হাসান চৌধুরী, সাবেক যুগ্ম মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুন নূর, তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় সভাপতি ফখরুল ইসলাম, আনজুমানে আল ইসলাহর কেন্দ্রীয় শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মাওলানা নজমুল হুদা খান, সমাজকল্যাণ সম্পাদক মাওলানা মাহমুদ হাসান চৌধুরী, তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা হাসান চৌধুরী গিলমান, সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা শরীফ উদ্দিন, হাফিয নজীর আহমদ হেলাল, মাওলানা বেলাল আহমদ, আনজুমানে আল ইসলাহর সিলেট মহানগর সভাপতি আলহাজ শাহজাহান মিয়া, সাধারণ সম্পাদক আজির উদ্দিন পাশা, সাংগঠনিক সম্পাদক সম্পাদক মাওলানা আতাউর রহমান, নর্থইস্ট ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের লেকচারার নোমান আহমদ, তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শরীফ উদ্দিন, সহ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক দুলাল আহমদ, অর্থ সম্পাদক রেদওয়ান আহমদ চৌধুরী ও অফিস সম্পাদক আক্তার হোসাইন জাহেদ প্রমুখ।

শেয়ার করুন