গণজাগরণ মঞ্চের হরতাল চলছে : সিলেটে চলছে যানবাহনও

হরতাল  চলাকালে মঙ্গলবার সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সম্মুখে গণজাগরণ মঞ্চ কর্মীদের অবস্থান-ছবি আমির হোসেন সাগর

হরতাল চলাকালে মঙ্গলবার সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সম্মুখে গণজাগরণ মঞ্চ কর্মীদের অবস্থান-ছবি আমির হোসেন সাগর

hortalসিলেটের সকাল : লেখক-প্রকাশক হত্যা ও হামলার প্রতিবাদে গণজাগরণ মঞ্চের দেশব্যাপী ডাকা অর্ধদিবস হরতাল চলছে। সকাল ৬টায় শুরু হওয়া হরতালে সকাল ৭টার দিকে সিলেট নগরীতে কিছুটা ট্রাক, সিএনজি অটোরিকশা, রিকশাসহ কিছু যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেছে।

জাগৃতি প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী ফয়সল আরেফিন দীপনকে হত্যা; কবি তারেক রহিম, শুদ্ধস্বর প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী আহমেদুর রশীদ টুটুল ও লেখক-গবেষক রণদীপম বসুকে হত্যা চেষ্টার প্রতিবাদে এবং তাদের ওপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে রোববার এ অর্ধদিবস হরতাল কর্মসূচি ঘোষণা করে গণজাগরণ মঞ্চ।

হরতালের সমর্থনে সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর শাহবাগে আয়োজিত মশাল মিছিল শুরুর আগে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে কথা বলেন ইমরান এইচ সরকার।

তিনি বলেন, ব্লগার, লেখক, প্রকাশক থেকে শুরু করে যারাই উগ্রবাদী চিন্তার সঙ্গে দ্বিমত করেছেন, তাদেরই হত্যা করা হচ্ছে। এর প্রতিবাদে আমরা দুইদিন ধরে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে আসছি। মঙ্গলবার (০৩ নভেম্বর) আমরা সারাদেশে অর্ধবেলা হরতালের ডাক দিয়েছি।

জেল হত্যা দিবসের প্রসঙ্গে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র বলেন, ০৩ নভেম্বর জেল হত্যা দিবস। এ দিনে জাতীয় যে চারজন নেতাকে হত্যা করা হয়েছে, তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই। যে কারণে তারা সংগ্রাম করেছেন, মুক্তিযুদ্ধ করেছেন, মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়েছেন, সেই অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার জন্যই আমরা আমাদের সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছি। জেল হত্যা দিবস কোনো উৎসবের দিন নয়, তাই তো উৎসবের মাধ্যমে নয়, প্রতিবাদের হরতাল পালনের মধ্য দিয়েই দিবসটি পালন করুন।

এ সময় ঘোষণা দেওয়া হয়, মঙ্গলবার শাহবাগসহ রাজধানীর বিভিন্নস্থানে এবং সারাদেশে ভোর ৬টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত রাজপথে থেকে হরতাল কর্মসূচি পালন করা হবে।

শেয়ার করুন