ইকরা প্রতিবন্ধী শিশু হাসপাতালে ওয়ার্ড সার্ভিস উদ্বোধন

IQra Photo-31-10-15ডেস্ক রিপোর্টঃনগরীর দক্ষিণ সুরমাস্থ টেকনিক্যাল রোডে ইকরা ইন্টারন্যাশনাল ইউকে প্রতিষ্ঠিত ইকরা প্রতিবন্ধী শিশু হাসপাতালে ওয়ার্ড সার্ভিস শুরু হযেছে শনিবার থেকে। এ উপলক্ষে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার (অব.) জাতীয় অধ্যাপক ডা. এ. মালিক বলেছেন, কুরআন  শরিফে অনেকবার  সৎকর্মের প্রতি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। মানবসেবা হচ্ছে অন্যতম সৎকর্ম। আমাদের সমাজে প্রতিবন্ধীরা সুবিধাবঞ্চিত ও অবহেলিত। তাদের সেবায় এগিয়ে আসা নিঃসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ সৎকর্ম ও প্রশংসনীয়।
ইকরা প্রতিবন্ধী শিশু হাসপাতাল প্রাঙ্গণে হাসপাতালের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. আজির উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ব্রিগেডিয়ার ডা. (অব.) এ. মালিক আরো বলেন, ইকরা প্রতিষ্ঠিত এই হাসপাতালটি একটি জাতীয় প্রতিষ্ঠান। প্রবাসীদের সহযোগিতায় প্রতিষ্ঠিত মানবসেবার এই হাসপাতাল একটি অনন্য উদাহরণ হয়ে থাকবে। এই প্রতিষ্ঠানটি টিকিয়ে রাখতে সরকারি ও বেসরকারি সার্বিক সহযোগিতা প্রয়োজন। আগামীতে এই হাসপাতালের কার্যক্রম আরো সম্প্রসারিত হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ দেন ইকরা ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের চেয়ারম্যান, সিলেট প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মুক্তাবিস-উন্-নূর। তাঁর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান ইকরা ইন্টারন্যাশনালের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, মানবসেবামূলক এই প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন ও সম্প্রসারণে সকল মহলের এগিয়ে আসা প্রয়োজন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে লন্ডনের চ্যানেল এস-এর চেয়ারম্যান আহমদ-উস-সামাদ চৌধুরী বলেন, সিলেটের মাটি ও মানুষের সঙ্গে যুক্তরাজ্য প্রবাসীদের আত্মার সম্পর্ক। এই হাসপাতাল প্রতিষ্ঠায় প্রবাসীরা বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেছেন। তিনি এই হাসপাতালের আরো উন্নয়নে স্থানীয় বিত্তশালী ও ব্যবসায়ীদের সম্পৃক্ত করার প্রতি গুরুত্বারোপ করেন। সবশেষে তিনি বলেন, ইকরার সঙ্গে প্রথম থেকে ছিলাম, এখনো আছি এবং আগামীতেও থাকব।
আরেক বিশেষ অতিথি সিলেট পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান আ.ফ.ম. কামাল বলেন, মানবসেবার এই হাসপাতালে সহযোগিতার অর্থ হচ্ছে, নিজেকে ধন্য করা এবং পরকালে সহযোগিতার বিনিময় প্রাপ্তির আশা রাখা।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সেন্টার ফর এনআরবি’র চেয়ারপার্সন এমএস সেকিল চৌধুরী বলেন, প্রবাসীরা দেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নে বিশাল অবদান রাখছেন। বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বৃদ্ধিতে প্রবাসীদের অনেক অবদান রয়েছে। ইকরা ইন্টারন্যাশনাল কর্তৃক প্রতিবন্ধী শিশু হাসপাতাল প্রতিষ্ঠায়ও প্রবাসীরা মুক্তহস্তে এগিয়ে এসেছেন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে যুক্তরাজ্যের ব্রেন্ট কাউন্সিলের ডেপুটি মেয়র পারভেজ আহমদ বলেন, বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নে প্রবাসীরা নানাভাবে অবদান রেখে চলেছেন। ইকরার প্রতিবন্ধী শিশু হাসপাতাল এর অন্যতম উদাহরণ।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপি চেয়ারপার্সনের মধ্যপ্রাচ্যবিষয়ক বিশেষ দূত এনামুল হক চৌধুরী বলেন, ইকরা প্রতিবন্ধী শিশু হাসপাতাল থেকে অনেক মানুষ উপকৃত হবেন। তিনি এরকম কর্মকাণ্ডে প্রবাসীদের আরো এগিয়ে আসার আহবান জানান।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন ইকরা ইন্টারন্যাশনাল ইউকে’র চেয়ারম্যান আবদুল হক হাবিব, ইকরা ইন্টারন্যাশনালের পেট্রন কুদ্দুস আলী ইসমাইল ও
সম্মানিত অতিথি হিসেবে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন লন্ডনের চ্যানেল এস-এর হেড অব প্রোগ্রাম ফারহান মাসুদ খান, ইকরা ইন্টারন্যাশনাল ইউকে’র ট্রেজারার মাসুদ আহমদ, সিলেট প্রেসক্লাবের সভাপতি ইকবাল সিদ্দিকী, বিএমএ’র সিলেট জেলা সভাপতি ডা. রুকন উদ্দিন আহমদ।
এছাড়াও অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদ, বরইকান্দি মেস্তরি মসজিদের মুতাওয়াল্লি বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মতছির আলী এবং হাসপাতালের আউটডোরে চিকিৎসাগ্রহণকারী প্রতিবন্ধী শিশু ওমর ফারুকের মা কলসুমা বেগম। তিনি বলেন, তাঁর পুত্র এই হাসপাতালে এক বছর সেবা গ্রহণ করার ফলে এখন হাঁটতে পারে; এমনকি দৌড়াতেও পারে। অথচ আগে সে দাঁড়াতেই পারত না।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ সুরমার বরইকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলহাজ হাবিব হোসেন, সিলেট জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক সাধারণ সম্পাদক খন্দকার ফজলুর রহমান বাবুল, হাসপাতালের পেট্রন এনামুল হক কিরণের মা জুবেদা বেগম চৌধুরী, ইকরার ফাউন্ডিং মেম্বার মিসবাহ সিদ্দিকী ও শেরওয়ান কামালী, ইকরা বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের সহ-সভাপতি সিলেট জেলা বারের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট ই.ইউ. শহিদুল ইসলাম শাহিন, সেক্রেটারী এ.কে.এম. বদরুল আমিন হারুন ও ট্রেজারার ফারুকুজ্জামান খান প্রমুখ।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত করেন দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী আতাউর রহমান খান শামছু এবং অনুষ্ঠান শেষে মুনাজাত পরিচালনা করেন আলকুরআন ইনস্টিটিউট ইউকে’র পরিচালক হাফিজ মাওলানা শফিকুর রহমান মাদানী।
অনুষ্ঠানের শেষপর্যায়ে যুক্তরাজ্যের কার্ডিফ সিটি কাউন্সিলের ডেপুটি লর্ড মেয়র আলী আহমদের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল ইকরা প্রতিবন্ধী শিশু হাসপাতাল পরিদর্শন করে।

শেয়ার করুন