সিলেটের দরগাহ মাদরাসার সেই ছাত্র হত্যাকারীর ফাঁসি

4 copy

নিহত অামির আব্বাস

সিলেটের সকাল : সিলেটের মাদরাসা অঙ্গনে প্রথম খুনের দায়ে মৃত্যুদ- হয়েছে ঘাতক সাইফুর রহমানের। রোববার সিলেট মহানগর দায়রা জজ মোঃ আকবর হোসেন মৃধা সাইফুরকে মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছেন। ঘটনার পর থেকে সাইফুর এখনও পলাতক রয়েছে। আদালত আসামীকে মৃত্যুদন্ডের পাশাপাশি ১০ হাজার টাকার অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করেছেন। সাইফুর ওসমানীনগর থানার গলমুকাপন (পীরবাড়ি)’র মৃত মুতিউর রহমানের ছেলে।

জামেয়া কাসিমুল উলুম দরগাহ হযরত শাহজালাল (রাহ.) মাদরাসার হিফজ বিভাগের ছাত্র আমির আব্বাসকে (১৮) ঘুমন্ত অবস্থায় খুন করেলি সাইফুর। ঘটনা ২০১২ সালের ২৫ জুনের।

মামলার বিবরণে উল্লেখ করা হয়, দরগাহ মাদরাসার হিফজ বিভাগের ছাত্র আমির আব্বাস (১৮)কে ২৫ জুন রাতে তার সহপাঠী শাহ্ সাইফুর রহমান (২২) ছাত্রাবাসে নির্মমভাবে খুন করে।
ঘটনার পর পর নিহতের পিতা আব্দুস সালাম কতোয়ালী থানায় এজাহার দায়ের করলে সেটি এই মামলাটি রুজু হয়। পুলিশ তদন্ত শেষে শাহ্ সাইফুর রহমানকে একমাত্র আসামি করে দন্ডবিধির ৩০২ ধরায় অভিযোগপত্র দাখিল করে। মামলাটি বিচারের জন্যে প্রস্তুত হয়ে মহানগর দায়রা জজ আদালতে প্রেরিত হলে রাষ্টপক্ষ থেকে আদালতে মোট ১৮জন সাক্ষীর স্বাক্ষ্য প্রদান করান। বিচারক উভয় পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে রোববার রায় ঘোষণা করেন।

মামলাটি পরিচালনা করেন মহানগর দায়রা জজ আদালতের এডিশনাল পি.পি. মোঃ মফুর আলী এবং নিহতের পিতার পক্ষে হযরত শাহ্জালাল (রহ.) মাজার মাদ্রাসাকর্তৃপক্ষের নিয়োগকৃত আইনজীবী সাবেক পি. পি. এমাদ উল্লাাহ শহিদুল ইসলাম। অপরদিকে আসামিপক্ষকে রাষ্ট্র নিয়োজিত আইনজীবী ছিলেন সৈয়দ মোহাম্মদ তারেক। রায় ঘোষণার সময় একমাত্র আসামি পলাতক ছিলেন।

এই বিষয়ক ঘটনার পূর্ণ বিবরণ পেতে ক্লিক করে ( দরগাহ মাদ্রাসার ছাত্র খুন : সহপাঠী সাইফুরকে খুঁজছে পুলিশ ) এই রিপোর্টটি পড়া যেতে পারে।

শেয়ার করুন