শীতকালীন জনপ্রিয় খেলা ‘ব্যাডমিন্টন’!

রশি দিয়ে নেট বানিয়ে ব্যাডমিন্টন খেলায় মেতে উঠেছে শিশুরা। ছবিটি সিলেট সদর উপজেলার মোগলাগাঁও ইউনিয়নের যুগীরগাঁও গ্রামের। ছবি-আমির হোসেন সাগর

রশি দিয়ে নেট বানিয়ে ব্যাডমিন্টন খেলায় মেতে উঠেছে শিশুরা। ছবিটি সিলেট সদর উপজেলার মোগলাগাঁও ইউনিয়নের যুগীরগাঁও গ্রামের। ছবি-আমির হোসেন সাগর

আবিদুর রহমান:
এসে গেল উইন্টার,
গায়ে দাও সোয়েটার।
উপভোগ কর পিঠা-পুলি,
সুন্দর কর মুখের বুলি।
ক্রিকেট ফুটবল রাখ ফেলে,
জলে উঠো ব্যাডমিন্টন খেলে।
জনপ্রিয়তার মাপকাঠিতে ব্যাডমিন্টন খেলাকে বাংলাদেশের জনপ্রিয় খেলা বলা যায় কিনা তা নিয়ে বিতর্ক হতেই পারে। কারণ ব্যাডমিন্টন এখনো বাংলাদেশে মৌসুমী খেলা বলেই পরিচিত। মূলত শীত মৌসুম এলেই ব্যাডমিন্টন খেলার ধুম পড়ে যায় বাংলাদেশে। কিশোর-তরুণ-যুবক এমনকি বয়স্করা পর্যন্ত র‌্যাকেট হাতে মেতে ওঠেন খেলায়। বাদ পড়েন না ললনারাও। শহর-বন্দর গ্রাম-গঞ্জে তখন শুধু একই চিত্র। সামান্য একটু খালি জায়গা পেলেই কিশোর-তরুনরা সেখানে ব্যাডমিন্টন খেলার আয়োজন করে থাকে। বিশেষ করে পশ্চিমাকাশে সূর্য অস্ত গিয়ে রাত নেমে আসার পর পরই বৈদ্যুতিক আলোর ঝলকানিতে র‌্যাকেট আর কর্কের ঠাঁস ঠাঁস শব্দে মুখরিত থাকে প্রায় প্রতিটি এলাকা। পাল্লা দিয়ে চলে তখন একের পর এক টুর্নামেন্ট। এ সময়কে বিবেচনা নিয়ে আসলে মনে হবে ব্যাডমিন্টনই বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা।

কিন্তু বাস্তব সত্য হলো সম্পূর্ণ বিপরীত। শীত মৌসুম বাংলার প্রকৃতি থেকে বিদায় নেয়ার সাথে ব্যাডমিন্টন খেলাও বাংলার আকাশ থেকে প্রায় হারিয়ে যায় বললেই চলে। তখন সেটি হয়ে যায় শহরকেন্দ্রিক আরো পরিষ্কার করে বললে রাজধানী কেন্দ্রিক। যে কারণে শীতকালে সর্বত্র ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা জনপ্রিয় এ খেলাকে আর জনপ্রিয়তার মাপকাঠিতে মূল্যায়ন করা যায় না। তাছাড়া শীতের খেলা বলে পরিচিত অধিকাংশ টুর্নামেন্টই হয় অন্য সময়ে বা গ্রীষ্মকালে। শীতের মৌসুমে দেখা যায় কোনো টুর্নামেন্টেরই আয়োজন করা হয়নি। সর্বস্তরের মানুষের মাঝে ব্যাডমিন্টন খেলা নিয়ে ব্যাপক আগ্রহ থাকা সত্ত্বেও আজো তা জনপ্রিয়তার শীর্ষে পোঁছাতে পারেনি। তেমনি পারেনি কোনো সম্ভাবনা সৃষ্টি করতে। এভাবেই বাংলাদেশে চলছে ব্যাডমিন্টন খেলা।

বাংলাদেশ ক্রিকেটে বিশ্বকাপে খেলে। ব্যাডমিন্টনে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা বিশ্বমানে পৌঁছতে পারবে যদি খেলাটির প্রতি একটু নজর দেওয়া যায়। বিশেষ করে শীত মৌসুমটাকে কাজে লাগাতে পারলে তা ফলদায়ক হবে বলে আশা করা যায়।

শেয়ার করুন