বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের মণিপুরী সাংগঠনিক জেলা গঠনের উদ্যোগ

Bpupmu- 06-12-14(2)সিলেটের সকাল রিপোর্ট: মণিপুরীদের সকল সার্বজনীন পূজা কমিটিকে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সাথে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে সাংগঠনিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এই লক্ষ্যে সকল মণিপুরী সার্বজনীন কমিটিগুলোর সমন্বয়ে গঠন করা হচ্ছে আলাদা একটি সাংগঠনিক জেলা। শুধু মণিপুরীদের নিয়ে আলাদা সাংগঠনিক জেলা গঠনের প্রাক-প্রাথমিক প্রস্তুতি ও সম্মেলন আয়োজনের লক্ষ্যে একটি প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়েছে শুক্রবার (৫ ডিসেম্বর)। প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে সুজিৎ সিংহ রেনুকে। কমলা বাবু সিংহকে সদস্য সচিব করে ২১ সদস্যের কমিটিকে সম্মেলন আয়োজনের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে বাংলাদেশের প্রত্যন্ত এলাকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা মণিপুরীদের সকল সার্বজনীন কমিটির তালিকা তৈরী ও তাদের মধ্যে সমন্বয়ের নির্দেশ দিয়েছে পূজা উদযাপন পরিষদ।

এ লক্ষ্যে শুক্রবার বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মৃত্যুঞ্জয় ধর ভোলা মণিপুরী অধ্যুষিত কমলগঞ্জ উপজেলায় সাংগঠনিক সফর করেন। এসময় তার সাথে সফর সঙ্গী ছিলেন, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খৃস্টান ঐক্য পরিষদ মৌলভীবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রাধাপদ দেব সজল, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ মৌলভীবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক পংকজ রায় মুন্না ও সিলেট জেলা শাখার সহ সভাপতি নির্মল কুমার সিংহ।

নেতৃবৃন্দ কমলগঞ্জের মণিপুরী ললিতকলা একাডেমীতে পৌঁছালে মণিপুরী নেতৃবৃন্দ তাদের ফুল দিয়ে বরণ করেন। এরপর অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মণিপুরী সমাজ কল্যাণ সমিতির কেন্দ্রীয় যুগ্ম আহ্বায়ক, শিক্ষাবিদ রাজকান্ত সিংহ।

বক্তব্য রাখেন মণিপুরী সার্বজনীন পূজা উদযাপন পরিষদগুলোর নেতৃবৃন্দ ছাড়াও মণিপুরীদের প্রতিনিধিত্বশীল সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। সভায় আলোচনাক্রমে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন মণিপুরী সাংগঠনিক জেলা গঠনের লক্ষ্যে একটি প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়।

সভায় নেতৃবৃন্দ আগামি ২৩ জানুয়ারী ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য হিন্দু বৌদ্ধ খৃস্টান ঐক্য পরিষদের মহাসমাবেশ সফলে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

এরপর প্রতিনিধিদল রাতে শ্রীমঙ্গলের মাগুরছড়াস্থ খাসিয়া পুঞ্জিতে যান এবং বৃহত্তর সিলেট আদিবাসী ফোরামের ভাইস চেয়ারম্যান জিডিশন প্রধান সুছিয়াংয়ের সাথে বৈঠক করেন এবং ২৩ জানুয়ারীর মহাসমাবেশ সফলের আহ্বান জানান। জবাবে জিডিশন প্রধান বলেন, এবারের সমাবেশ অতীতের চেয়ে ভিন্ন। হিন্দু বৌদ্ধ খৃস্টান ঐক্য পরিষদের সাথে আদিবাসীদের সম্পৃক্ত করায় সমাবেশ অবশ্যই ভিন্নতা পাবে।

শেয়ার করুন