বঙ্গবন্ধুর কন্যার কাছে একটি মুজিব কোট উপহার চাই!

Azir Uddinমুহম্মদ তাজুল ইসলাম, দোয়ারাবাজার (সুনামগঞ্জ) থেকে :: বিজয়ের মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ পেতে মরিয়া হয়ে উঠেছে এক মুক্তিযোদ্ধা সন্তান। সে সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার নরসিংপুর ইউনিয়নের বালিউড়া বাজারের মরহুম বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিম উদ্দিন খলিফার পুত্র আজির উদ্দিন (১৮)।

সম্প্রতি আবেগ আপ্লুত হয়ে কান্নাজড়িত কন্ঠে সে তার এ ইচ্ছেটির কথা স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমকে জানায়। একাত্তরে তার পিতা স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ গ্রহন করেছেন। স্বাধীনতাত্তোর অভাব অনটনের কারণে জীবন যুদ্ধে পরাজিত ছিলেন তিনি। অনাহারে অর্ধাহারে কেটেছে তাদের সংসার। সাংসারিক দৈন্যদশার মধ্য দিয়েও মৃত্যুর আগ পর্যন্ত আ’লীগের সাংগঠনিক তৎপরতায় সম্পৃক্ত ছিলেন তিনি। নিজের স্বার্থে কিছুই করেননি। ভিটেমাটি ছাড়া সহায় সম্বল কিছুই ছিলনা তার। মুক্তিযোদ্ধা ভাতা ও দর্জি পেশায় কোনোমতে চালিয়েছেন সংসার।

২০০০ সালে শিশু অবস্থায় তার মা মারা গেলে শোকে বিহবল হারিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন তার বাবা। নিজের এহেন পরিস্থিতির কথা হয়তো সহযোদ্ধাদের নিকট বলতেও পারেননি। তিনি বলতেন আজির তুমি শেখ মুজিবের ভাষণ ভালো করে মুখস্থ করো। বড় হয়ে তোমাকে একদিন বঙ্গবন্ধু কন্যার সামনে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ শোনাতে হবে। বাবার সেই ইচ্ছে পুরণ হলনা। চিকিৎসার অভাবেই দুই ভাইকে রেখে চলতি বছরের ২৫ এপ্রিল চলে গেলেন না ফেরার দেশে। বাবার মুত্যুর পর অভিভাবকহীন হয়ে পড়ে দুই ভাই আজির উদ্দিন ও আশরাফ উদ্দিন। তিন মাস পরপর পিতার মুক্তিযোদ্ধা ভাতা ও দুই ভাইয়ের অর্জিত অর্থ দিয়ে কোনোমতে জীবিকা নির্বাহ করছে।

মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কিশোর আজির উদ্দিনের আর্তি, ধনসম্পদ কিছুই চাহিনা আমি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সাক্ষাৎ করে একটি মুজিব কোট চাইবো আমি। সেই ছোট বেলা থেকে যখন একটু আধটু কথা বলতে আরম্ব করি তখন থেকেই বাবা আমাকে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ মুখস্থ করিয়েছিলেন। স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস আসলেই সভা সমাবেশে বাবা আমাকে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসকি ভাষণ শুনিয়ে নেতাকর্মীসহ উপস্থিত দর্শকদের মুগ্ধ করাতেন। বাবা নেই, তাই আসন্ন বিজয় দিবসে আর কেউ আমাকে নিয়ে যাবেনা সভা-সমাবেশে। ইচ্ছে থাকলেও জাতির জনকের ভাষণ শোনাতে পারবোনা সাধারণ মানুষকে। আমার জীবনে আর কোনো ইচ্ছে নেই। বাবার আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে এক মিনিটের জন্য হলেও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সামনে দাঁড়িয়ে বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনকের ঐতিহাসিক ভাষণ শোনাতে চাই। মা বাবা কেউই বেঁচে নেই, প্রধানমন্ত্রীর নিকট একটিই দাবি, তা হলো বঙ্গবন্ধু কন্যা আমাকে একটি মুজিব কোট উপহার দেবেন। এটাই আমার স্বপ্ন ও প্রত্যাশা।

শেয়ার করুন