আবারো মেসির হ্যাটট্রিকে বার্সার জয়োৎসব

barcalona1_banglanews24_365473366স্পোর্টস ডেস্ক: লা লিগার ম্যাচে আবারো বড় জয় তুলে নিয়েছে স্প্যানিস জায়ান্ট বার্সেলোনা। এ ম্যাচেও হ্যাটট্রিক করেন আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসি। মেসির ২৯তম হ্যাটট্রিকে বার্সা ঘরের মাঠ ক্যাম্প ন্যুতে ৫-১ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছে এসপানিওলকে।

কাতালান ক্লাবটির কোচ লুইস এনরিক ম্যাচের শুরুর একাদশে মাঠে নামান ব্রাভো, আলভেজ, পিকে, মাসচেরানো, আলবা, বাসকুয়েটস, জাভি, রেকিটিক, সুয়ারেজ, মেসি এবং নেইমারকে। কোচের আস্থার প্রতিদান দিয়ে সহজ জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সা।

তবে, ম্যাচের প্রথম গোলটি করে এসপানিওল। খেলার ১৩তম মিনিটে এসপানিওলের হয়ে গোলটি করেন সার্জিও গার্সিয়া। ১-০ গোলে এগিয়ে থাকা দলটি ম্যাচের ৩০ মিনিটের মাথায় মেসির একটি আক্রমণ থেকে বেঁচে যায়। মেসির নেওয়া শটটি গোলবারে লাগলে সমতায় ফেরা হয়ে উঠেনি বার্সার।

খেলার ৪৫ মিনিটের মাথায় প্রথম গোলের দেখা পায় বার্সা। দলকে সমতায় ফেরাতে গোলটি করেন মেসি। জাভির অ্যাসিস্ট থেকে গোল করেন ক্রমেই দূর্দান্ত খেলতে থাকা মেসি। প্রথমার্ধে আর কোন গোল না হলে ১-১ সমতা নিয়ে বিরতিতে যায় স্বাগতিক বার্সা।

বিরতি থেকে ফিরে ৭৬ হাজারেরও বেশি দর্শককে আবারো আনন্দে মাতিয়ে তোলেন মেসি। ম্যাচের ৫০তম মিনিটে লিভারপুলের সাবেক তারকা লুইস সুয়ারেজের অ্যাসিস্টে নিজের এবং দলের দ্বিতীয় গোলটি করেন মেসি। এর তিন মিনিট পরেই দলের তৃতীয় গোলটি করেন জেরার্ড পিকে। ইভান রেকিটিকের অ্যাসিস্টে পিকের গোলটি আসে।

ম্যাচের ৭৭তম মিনিটে পেদ্রো দলের হয়ে চতুর্থ গোলটি করেন। মাঝমাঠের এ পাশ থেকে লং পাস দেন জরদি আলবা। দারুণ দক্ষতায় বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডান পায়ের জোড়ালো শটে গোলটি করেন পেদ্রো।

ম্যাচের ৮১তম মিনিটে এসপানিওলের পাঁচজন ডিফেন্ডারকে একাই কাটিয়ে পেদ্রোকে বল দেন মেসি। পেদ্রো মেসির ওয়ান টু ওয়ান পাসে দারুণ এক গোল করে নিজের হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন মেসি।

ম্যাচের বাকি সময়ে আর কোনো গোল না হলে ৫-১ গোলের সহজ জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে লুইস এনরিকের শিষ্যরা। মেসিময় রাতে বার্সার এ জয়ের ফলে পয়েন্ট টেবিলে আবারো দুই নম্বরে চলে এলো বার্সেলোনা। ১৪ ম্যাচ খেলে ১১টি জয়, একটি ড্র আর দুইটি পরাজয় নিয়ে বার্সার সংগ্রহ ৩৪ পয়েন্ট। সমান ম্যাচ খেলে দুই পয়েন্ট বেশি নিয়ে শীর্ষে রয়েছে আরেক স্প্যানিস জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ। আর বার্সার থেকে দুই পয়েন্ট কম নিয়ে তিনে রয়েছে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ।

শেয়ার করুন