২৫৭ রানের জয়ের টার্গেট জিম্বাবুয়ের সামনে

riad nd mushi 134স্পোর্টস রিপোর্টার : সিরিজ নিশ্চিত হওয়ার পর আনুষ্ঠানিকতার চতুর্থ ওয়াডেতে টস জিতে ব্যাটিং নিয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশ।দলীয় ৩২ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকে টাইগাররা। সেখান থেকে দলের হাল ধরেন টেস্টের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। দুজনে ১৩৪ রানের জুটি গড়েন।

বাংলাদেশ দলের সংগ্রহ ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ২৫৬ রান। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ৮২ এবং রুবেল ৭ রানে অপরাজিত ছিলেন।

এর আগে মিরপুরে শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

টসের আগে অস্ট্রেলিয়ার উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ফিল হিউজের অকাল মৃত্যুতে বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তা দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন।

এরপর ব্যাট হাতে মাশরাফির সিদ্ধান্তের প্রতি সুবিচার করতে পারেনি উদ্বোধনী জুটি। দলীয় ১৪ রানে মাদজিভার বলে এলবিডব্লিউ হন আনামুল হক (৫)। এরপর দলীয় ৩১ রানে সলোমান মির মাসাকাদজার তালুবন্দি করে তামিমকে (১৬) ফেরান। একই রানে মাদজিভার বলে টেইলরের হাতে ধরা পড়েন ইমরুল কায়েস (৫)।

এরপর দলীয় ৩২ রানে বড় আঘাত হানেন মির। তার বলে মাদজিভার হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান সাকিব (১)। তবে এরপর আর সে বিপদ বাড়তে দেননি মাহমদুল্লাহ রিয়াদ। মুশফিককে নিয়ে ১৩৪ রানের জুটি গড়ে আউট হয়েছেন মুশফিক, দলীয় ১৬৬ রানে।

কামুনগাজির বল তুলে মারতে গেলে আকাশে উঠে যায়। সেটি নিতে খুব বেশি বেগ পেতে হয়নি জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক এল্টন চিগম্বুরার। সাজঘরে ফেরার আগে মুশফিক ৭৮ বলে ৭ চারে ৭৭ রান করেন। এরপর দ্রুত বিদায় নেন সাব্বির রহমান ও আবুল হাসান।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এই ম্যাচে অভিষেক হয়েছে স্পিনার জুবায়ের হোসেনের। তিনি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই টেস্ট সিরিজে অভিষিক্ত হন।

সেখানে তিনি দারুণ বোলিং করে নির্বাচকদের নজর কাড়েন। এরপরই তাকে ওয়ানডে দলে নেওয়া হয়। এছাড়া আজ দলে জায়গা পেয়েছেন পেসার আবুল হাসান।

এর আগে প্রথম তিন ম্যাচ জিতে বাংলাদেশ সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে। ফলে পরীক্ষা-নিরীক্ষার এই ম্যাচে বাঁ-হাতি মুমিনুল হককে বিশ্রাম দিয়ে নেওয়া হয় আরেক বাঁ-হাতি ইমরুল কায়েসকে। কিন্তু ভালো করতে পারেননি।

শেয়ার করুন