মন মাঝি তোর বৈঠা নে রে…

সিলেটের বুকে বয়ে চলা সুরমা নদী থেকে এ ছবিটি তোলা: ছবি- আমির হোসেন সাগর

সিলেটের বুকে বয়ে চলা সুরমা নদী থেকে এ ছবিটি তোলা: ছবি- আমির হোসেন সাগর

তানভীর আহমদে রুবেল : ‘মনমাঝি তোর বৈঠা নে রে/ আমি আর বাইতে পারলাম না/ সারা জনম উজান বাইলাম/ভাটির নাগাল পাইলাম না।’  আমাদের নদীমাতৃক বাংলার লোকগানের এই পঙ্‌ক্তি এখনো নদ-নদীর উত্তাল ঢেউয়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ভেসে বেড়ায়। বাতাসে কান পাতলেই শোনা যায় তার সুর। কালের বির্বতনে হারিয়ে যাচ্ছে নদ-নদী আর নদীতে ভেসে চলা নৌকার বহর।

সুরমায় এক কালে ছোট-বড় অসংখ্য নৌকা ভেসে ভেড়াতো এখন তা শুধু কালের সাক্ষী। সময়ে সাথে নগরীতে একের পর এক ব্রীজ আর মানুষের জীবন চলার গতি বৃদ্ধি পাওয়ার সাথে হারিয়ে যাচ্ছে নদীতে ভেসে চলা নৌকা আর ঘাট।

সিলেটের এক মাত্র নৌবন্দর নামে পরিচিত কালিঘাটের ঘাট আর কাজিরবাজার খেয়া ঘাট এখন যেন কালে সাক্ষী মাত্র। সুরমার উপর একের পর এক ব্রীজ হওয়ার ফলে হারিয়ে যাচ্ছে খেয়া ঘাটসহ নৌকা ও তাতে নদী পারা পারে লোকজন। মানুষ এখন আর নৌকা করে নদী পারাপার হতে চান না।  নৌকায় করে নদী পারাপার এখন শুধু সময় নষ্ট করার মতো বিষয়বস্তুতে পরিণত হয়েছে। অন্যাদিকে, সড়ক পথে উন্নয়ন সাধিত হওয়া এখন প্রত্যন্ত অঞ্চলের বাজার হাটগুলোতে পৌঁছে যাচ্ছে বিভিন্ন কোম্পানীর পণ্যবাহী গাড়িগুলো। এর ফলে এক দিকে যেমন ধ্বংসের শেষ প্রান্তরে চলে  এসেছে বাজারগুলো অন্যদিকে বেড়ে গেছে মানুষের জীবন চলার গতি পথ।

সুরমা বুকে ৩৮বছর ধরে নৌকা ভাসিয়ে চলেছেন স্বপন দাস, শনিবার হঠাৎ করে নৌকায় করে ঘুরে দেখার জন্য তার নৌকায় ওঠে কথায় কথায় বেরিয়ে আসল তার এবং সুরমার অতীত ঐতিহ্য। তিনি বলেন, একটা সময় ছিল যখন  সুরমার বুকে ভেসে বেড়াতো ছোট-বড় অসংখ্য মালবাহী নৌকা সেই সু-দূর সুনামগঞ্জ, ছাতক, দিরাই এমন কি এ নীদ দিয়ে ভারত থেকে আনা হতো আমদানী কৃত পথ, কয়লাসহ নানা রকম প্রয়োজনীয় মালামাল। কিন্তু সময়ের সাথে নদীর হারাচ্ছে তার গভীরতা আর সড়ক পথের উন্নতির সাধিত হওয়ায় কেউ আর সময় ক্ষেপন করতে চান না নৌকা যোগে মালামাল বহন করতে। এ কারণে দিনে পর দিন ধরে হারিয়ে যাচ্ছে সুরমার বুক থেকে নৌকা আর মাঝি। এখনো যা অবশিষ্ট আছে তাও আর বেশি দিন দেখা যাবে না…..কারণ সময়ের সাথে তালে তাল মিলেয়ে নৌকা দিয়ে এখন আর ঘর সংসার চালানো এখন অনেক কঠিন হয়ে পড়েছে। মানুষ এখন আর আগের মতো করে নৌকায় ওঠে না, আর ওঠলেও নদীর পারা পারে জন্য যে ভাড়া দেওয়া হয় তাতে আমাদের চলে না….

শেয়ার করুন