জগলুল আহমদের মৃত্যুর ঘটনায় ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি

Zaglul-ed1

দাফন সোমবার

ডেস্ক রিপোর্ট: সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বিএসএস) সাবেক প্রধান সম্পাদক ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেষক জগলুল আহমেদ চৌধুরীর মৃত্যুর ঘটনা তদন্তে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটিকে তিন কার্য দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের রোববার সকাল ১০টায় সংসদ এভিনিউতে সড়ক নিরাপত্তা কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।
সড়ক দুর্ঘটনায় জগলুল আহমেদ চৌধুরীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে তিনি বলেন, এ ঘটনার কারণ নির্ধারণ, দায়ী ব্যক্তিদের চিহ্নিতকরণ ও প্রয়োজনীয় সুপারিশমালা প্রণয়নে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।
মন্ত্রী জানান, কমিটির প্রধান বিআরটিএর পরিচালক যুগ্মসচিব মশিউর রহমান, সদস্য হিসেবে আছেন দৈনিক ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত, ট্রাফিক পুলিশের উপ-কমিশনার ইমতিয়াজ আহমদ, ডিটিসিএ-এর নগর পরিকল্পনাবিদ নাহমাদুল হাসান ও ঢাকা সিটি করপোরেশনের (উত্তর) ট্রাফিক কর্মকর্তা খন্দকার মাহবুবুর রহমান।
শনিবার (২৯ নভেম্বর) রাত ৮টার দিকে রাজধানীর কারওয়ানবাজার এলাকায় সোনারগাঁও মোড়ে বাস থেকে নামার পর একই বাসের চাপায় গুরুতর আহত হয়ে রাজধানীর একটি হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। তার জানাযা হবে সোমবার।
এর আগে এক শোকবার্তায় মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন,  আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক আলোচনা ও গবেষণায় তিনি অসামান্য ভূমিকা রেখেছেন। তার মৃত্যুতে সাংবাদিকতায় অপূরণীয় ক্ষতি হলো।

জগলুল আহমেদের গ্রামের বাড়ি হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার পিয়াইম গ্রামে। তার বাবা নাসিরউদ্দিন চৌধুরী যুক্তফ্রন্ট সরকারের আইনমন্ত্রী ছিলেন।
জগলুল আহমেদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। নিউইয়র্ক টাইমসের বাংলাদেশ প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করেছেন তিনি।
জাতীয় প্রেসক্লাব ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির স্থায়ী সদস্যসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন জগলুল আহমেদ। ১৯৮৮-৮৯ সালে অবিভক্ত বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সহকারী মহাসচিব ছিলেন তিনি। তিনি সিলেট প্রেসক্লাবেরও সম্মানিত আজীবন সদস্য ছিলেন।

শেয়ার করুন