খাদিমপাড়ায় ব্যবসায়ীকে মারধর করে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ : প্রতারক আটক

১১১১১১সিলেটের সকাল রিপোর্ট : খাদিমপাড়ায় এক ব্যবসায়ীকে আটকিয়ে মারধর করে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে এক প্রতারককে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতের নাম- বাপ্পী রায় (২৮)। সে সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ থানার রহিমপুর গ্রামের বাবুল রায়ের পুত্র। বর্তমানে সে কোম্পানীগঞ্জ থানা এলাকার মোহাম্মদ আলীর বাড়ীর ভাড়াটে। বুধবার পুলিশ গ্রেফতারকৃত বাপ্পীকে আদালতে হাজির করে। পরে আদালত তাকে কারাকারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

মামলা সুত্রে জানা গেছে, হকিগঞ্জের লাখাই থানার বাইল গ্রামের ভিংরাজ মিয়ার পুত্র ব্যবসায়ী নাজিম উদ্দিনকে ব্যবসার কথা বলে বাপ্পী রায় ও তার সহযোগী মিলে বেশ কিছু দিন আগে ঢাকায় নিয়ে যায়। গত ১৯ নভেম্বর দুপুর ১ টার দিকে দুর্বৃত্তরা ঢাকা থেকে চলে এসে খাদিমপাড়া মোহাম্মদপুর আবাসিক এলাকার আলী হোসেনের বাড়ীর টিলার উপরের একটি ঘরে আটকিয়ে রাখে এবং নাজিমকে মারধর ও নির্যাতন করে তার সাথে থাকা ৫২ হাজার টাকা নিয়ে নেয়। এর পর দুর্বৃত্তরা ফোনে তার পরিবারের কাছে আরো ২ লক্ষ টাকা মুক্তিপন দাবী করে আসছিল।

গত মঙ্গলবার সকালে নাজিম দুর্বৃত্তদের টয়লটে যাওয়ার কথা বলে দৌড়ে মোহাম্মদপুর এলাকার এক মুয়াজ্জিনের বাড়িতে আশ্রয় নেয়। এসময় দুর্বৃত্তরা পিছু নিয়ে তাকে ধাওয়া করতে থাকে। এক পর্যায়ে তার আত্মচিৎকারে ও স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতায় বাপ্পীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করলেও অপর সহযোগীরাএ সময় পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় নাজিম উদ্দিনের ভাই জয়নাল আবেদীন বাদি হয়ে মোশারফ ওরফে ফারুক ও বাপ্পীকে আসামী করে শাহপরান থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। নং- ২৩ (২৫-১১-১৪)।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা শাহপরান থানার উপ পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) মোঃ আমিনুল ইসলাম জানান, নাজিম উদ্দিনকে প্রতারণা করে ভুঁয়া পরিচয় দিয়ে ঘটনাস্থলে নিয়ে যায় ধৃত বাপ্পীসহ তার সহযোগীরা। সেখানে তারা নাজিমকে আটকিয়ে মারধর করে তার নিকট ৫২ হাজার টাকা নিয়ে পরিবারের কাছে মুক্তিপণ দাবী করে আসছিল।

তিনি আরো জানান, তারা তার কাছ থেকে আরো টাকা নেয়ার জন্য চাপ দিতে থাকে। ধৃত বাপ্পী প্রতারক দলের সদস্য বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। তবে তার সাথে এক সংঘবদ্ধ চক্র জড়িত রয়েছে। মামলাটি তদন্ত অব্যাহত আছে বলে জানান তিনি ।

শেয়ার করুন